আলজেরিয়ার প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীকে দুর্নীতি মামলায় সুপ্রিম কোর্টের জিজ্ঞাসাবাদ: রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন

আলজেরিয়ার প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীকে দুর্নীতি মামলায় সুপ্রিম কোর্টের জিজ্ঞাসাবাদ: রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন আলজেরিয়ার প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীকে দুর্নীতি মামলায় সুপ্রিম কোর্টের জিজ্ঞাসাবাদ: রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন

আলজেরিয়ার সরকারি টেলিভিশনের রিপোর্ট অনুসারে, প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী করিম দাউদী রোববার সুপ্রিম কোর্টে হাজির হন, এদিন তাকে দুর্নীতির অভিযোগে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

ক্ষমতাসীন দলের পদত্যাগের দাবিতে এই বছর বিক্ষোভ শুরু হওয়ার পর থেকে তদন্তের মুখোমুখি হওয়ার জন্য সাবেক রাষ্ট্রপতি আব্দেলাজিজ বোতেফ্লিকা সঙ্গে যুক্ত সিনিয়র রাজনীতিবিদদের সম্পৃক্ততার কারণে তাকে এই জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন দাউদীর মামলার বিষয়ে বিস্তারিত জানায়নি এবং তার আইনজীবীকে মন্তব্যের জন্য তাৎক্ষণিকভাবে পাওয়া যায়নি।

একই আদালত সাবেক প্রধানমন্ত্রী আহমেদ ওয়াহিয়া ও আব্দেলমালেক সেল্লালকে এবং সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী আমারা বেনিওনেসকে সরকারি তহবিলের অপচয় এবং অবৈধ সুবিধা প্রদানের দায়ে আটক করার কিছু দিন পর দাউদীর শুনানি শুরু করে।

Forexmart

দুই মাস আগে বোতেফ্লিকা-এর পদত্যাগের পর সেনাবাহিনী এখন আলজেরিয়ার রাজনীতির প্রধান নিয়ন্ত্রকের ভূমিকা পালন করছে এবং তাদের প্রধান কর্মী আহমেদ জায়েদ সালাহা দুর্নীতির মামলায় জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে যাদের বিরুদ্ধে বিচার বিভাগকে দ্রুত তাদের বিচার করার আহবান জানিয়েছেন।

১৯৬২ সালে ফ্রান্স থেকে স্বাধীনতা লাভের পর থেকে উত্তর আফ্রিকান দেশটিতে কাঠামোগত পরিবর্তন আনা ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে আন্দোলন চলে আসছে।

২০০৭ সালের জুন থেকে ২০১৪ সালের মে মাস পর্যন্ত উয়াহিয়ার অধীনে দাউদী অর্থমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন, তিনি গত দুই বছর ধরে বুটফ্লিকার পরামর্শদাতা হওয়ার আগে স্বাস্থ্যসেবা থেকে পদত্যাগ করেছিলেন।

২২ শে ফেব্রুয়ারি থেকে চলমান বিক্ষোভ ও সেনাবাহিনীর চাপে বুটিফ্লিকা এপ্রিলের ২ তারিখ পদত্যাগ করেন।

সেনাবাহিনীর কর্তৃত্বকে ক্ষতিগ্রস্ত করা এবং রাষ্ট্রীয় কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে চক্রান্তে জড়িত থাকার অভিযোগে বোতেফ্লিকার ছোট ভাই সাইদ এবং দুই সাবেক গোয়েন্দা প্রধানকে সামরিক আদালতের হেফাজতে রাখা হয়েছে।

বোতেফ্লিকার নিকটবর্তী কয়েকজনকে যার মধ্যে রয়েছে বেশ কিছু বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, দুর্নীতির অভিযোগে আলজিয়ার্সের একটি কারাগারে আটক করে রাখা হয়েছে।

প্রতিবাদকারীরা এখন অন্তর্বর্তীকালীন রাষ্ট্রপতি আবদেলকাদের বেনসালাহ ও প্রধানমন্ত্রী নূরদ্দিন বেদুইর পদত্যাগ চাইছেন যাদের উভয়কেই এই সংস্থার অংশ হিসাবে দেখা যায়।

প্রার্থীদের অভাব উল্লেখ করে কর্তৃপক্ষ ৪ জুলাই রাষ্ট্রপতি নির্বাচন স্থগিত করেছে। ভোটের জন্য এখনো নতুন তারিখ নির্ধারণ করা হয়নি।

সূত্র- investing.com

leave a reply