একজন ফরেক্স ট্রেডার হওয়ার পেছনে আপনার উদ্দেশ্য কি?

একজন ফরেক্স ট্রেডার হওয়ার পেছনে আপনার উদ্দেশ্য কি? একজন ফরেক্স ট্রেডার হওয়ার পেছনে আপনার উদ্দেশ্য কি?

একজন ফরেক্স ট্রেডার হওয়ার পেছনে আপনার উদ্দেশ্য কি:- আপনি কেন ফরেক্স ট্রেডার হতে চান? রাতারাতি ধনী হওয়ার জন্যে? নাকি আপনি রোমাঞ্চ (adventure) চাচ্ছেন? নাকি আপনি কিছু চ্যালেঞ্জিং এবং আনন্দদায়ক করতে চাচ্ছেন? এই সকল প্রশ্নের উত্তর খুঁজে বের করা খুবই জরুরি। এই উত্তরই আপনাকে বলে দিবে যে আপনার ফরেক্স ট্রেডার হওয়ার যোগ্যতা আছে কিনা | যেসকল ফরেক্স ট্রেডাররা এই বাজারের প্রতি আন্তরিক নন এবং যারা সদা পরিবর্তিত পরিস্থিতির সাথে খাপ খেয়ে চলতে পারেন না তারা খুব শীঘ্রই এই বাজার থেকে ছিটকে পড়েন।

উদাহরণস্বরূপ বলা যায় যে, রোমাঞ্চ চাওয়া এবং ধারাবাহিকভাবে মুনাফা করতে চাওয়া, এই দুইটি ইচ্ছাই পরস্পর বিপরীতমুখী। আপনি হয়তো রোমাঞ্চকর কিছু করার ব্রত নিয়ে ট্রেড চালু করতে পারেন কিন্তু খুব শিগ্রই আপনার করা এই ট্রেডটি যেন আপনার চোখের সামনেই আকাশে উড়ে যাবে।

তাই সফলভাবে ট্রেড করতে হলে মনকে স্থির করে একটি অর্জনযোগ্য লক্ষ্য নির্ধারণ করতে হবে এবং এই লক্ষ্য নির্ধারণে আপনাকে হতে হবে সুনির্দিষ্ট।

Risk Capital কি? এবং আপনি কত অর্থ হারানোর ক্ষমতা রাখেন?

Risk Capital হলো আপনার মালিকানাধীন অর্থের সেই অংশ যেটিকে ফরেক্স বাজারে ক্ষতির সম্মুখীন হয়ে হারানোর ক্ষমতা আপনি রাখেন। অন্য ভাষায় বলা যায় যে, যে পরিমান অর্থ হারালে আপনার জীবন ধারণের মানে তেমন কোনো পার্থক্যই পড়বে না তাকেই বলে Risk Capital। তাই যে জিনিসটি বা যেই সম্পদটি হারানোর ক্ষমতা আপনার নেই সেটিকে আপনি লেনদেনে ব্যবহার করবেন না।

Forexmart

ধরুন, আপনার হাতে এখন আপনার বাসার বৈদ্যুতিক বিল বাবদ কিছু অর্থ আছে । এই অর্থ দিয়ে আপনি যদি ফরেক্স বাজারে লেনদেনে নামেন এবং ঘটনাক্রমে ক্ষতির সম্মুখীন হয়ে সবগুলো অর্থ হারিয়ে ফেলেন তাহলে নিশ্চই আপনি একটি বিপদজনক পরিস্থিতির শিকার হবেন।

ফরেক্স ট্রেডিং করতে গিয়ে আপনি কতটুকু সময় ব্যয় করবেন?

একজন ট্রেডার হিসেবে আপনাকে প্রথমে নিশ্চই এটি নির্ধারণ করতে হবে যে আপনি কতটুকু সময় ফরেক্স ট্রেডিং করতে গিয়ে ব্যয় করবেন। একটি ট্রেডিং সম্পর্কিত যাবতীয় কাজ সুশৃঙ্খলভাবে করতে হলে আপনি দৈনিক/সাপ্তাহিক/মাসিক ভিত্তিতে কতটুকু সময় দিতে পারবেন তা হবে এই আলোচনার বিবেচ্য বিষয়।

এখানে মনে রাখতে হবে যে, আপনি যত কম সময় ধরে ট্রেড করবেন আপনাকে তত বেশি চার্ট এবং গ্রাফ দেখতে হবে। আপনি যদি Day Trader হন বা দৈনিক ভিত্তিতে ট্রেড করেন তাহলে আপনাকে সারাদিন আপনার কম্পিউটারের পর্দায় চোখ রাখতে হবে। আপনি যত লম্বা সময়ধরে ট্রেড করবেন আপনাকে বাজারের গতিবিধি সম্পর্কে ততই কম জানতে হবে।

আপনি যদি একজন Scalper হয়ে থাকেন তাহলে নিশ্চই আপনি entry এবং exit পয়েন্টগুলোতে লেনদেন করার সুযোগ হারাবেন। এখানে আপনাকে আরও মনে রাখতে হবে যে, ট্রেডিং বলতে শুধু বাজারে প্রবেশ এবং কাজ শেষে বেরিয়ে আসাকে বুঝায় না। বরং একবার ট্রেড শুরু করলে আপনাকে ট্রেডের পাশাপাশি এর সাথে জড়িত আনুষঙ্গিক জিনিসগুলোকে একটি ব্যবস্থাপনার মধ্যে আনতে হবে। যেমন: ট্রেড চলাকালীন সময়ে সচল থাকা, ট্রেড শেষে পুরো বিষয়টিকে ঠান্ডা মাথায় চিন্তা করা, আপনার ট্রেডিং এর অভিজ্ঞতাকে আরও মধুর কিভাবে করা যায় তার উপায় খুঁজে বের করা, ট্রেডিং এর সাথে জড়িত সকল কিছুকে একটি ডায়েরিতে লিপিবদ্ধ করা ইত্যাদি।

leave a reply