টেকনিক্যাল এনালাইসিস | ৪ঠা আগস্ট, ২০২০

EUR/USD:

মার্কিন ডলার ইনডেক্স এই সপ্তাহে কিছুটা শক্তিশালী অবস্থানে রয়েছে। মঙ্গলবারে সর্বোচ্চ 94.01 এ গিয়েছে মার্কিন ডলার ইনডেক্সের মূল্য।

চার ঘন্টার টাইমফ্রেমে EUR/USD পেয়ারটি সর্বনিম্ন 1.1681 থেকে শুরু হওয়া ট্রেন্ড লাইন সাপোর্টকে অতিক্রম করে 1.17 হ্যান্ডেল এর মুখোমুখি হয়েছে। সম্প্রতি তৈরি হওয়া ট্রেন্ড লাইন সাময়িক ভাবে রেসিস্টেন্স এর কাজ করলেও কিছুটা উপরে উঠলে রেসিস্টেন্স হিসেবে রয়েছে 1.18। 1.17এর নিচে সাপোর্ট হিসেবে সবার নজর এখন 1.1652 এবং সর্বনিম্ন 1.1254 থেকে শুরু হওয়া ট্রেন্ড লাইন সাপোর্ট 1.1254 এর দিকে।

এদিকে সাপ্তাহিক প্রাইস টানা ছয় সপ্তাহের মূল্যবৃদ্ধির পথ ধরেই এগোচ্ছে এবং সম্প্রতি সাপোর্ট হিসেবে 1.1733 তে পরীক্ষিত হয়েছে। এর ফলে প্রাইস 2018 সালের ওপেনিং লেভেল 1.2004 এর দিকে যাওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে।

ডেইলি টাইমফ্রেমে Quasimodo রেসিস্টেন্স 1.1840 পরবর্তী টার্গেট হিসেবে কাজ করছে। প্রাইস নিচের দিকে গেলে সাপোর্ট হিসেবে রয়েছে 1.1594, যা কিনা সর্বোচ্চ 1.1147 থেকে শুরু হওয়া চ্যানেল রেসিস্টেন্স এর কাছেই অবস্থিত। উপরের দিকে প্রাইস রেসিস্টেন্স লেভেল 1.1940 তে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

Forexmart

বিবেচনার জায়গাগুলো:

সর্বোচ্চ 1.2555 থেকে নেওয়া ট্রেন্ড লাইন রেসিস্টেন্স এবং মার্চের 9 তারিখের সর্বোচ্চ 1.1495 কে ব্রেক করলে বড় ধরনের টেকনিক্যাল পরিবর্তন হতে পারে।

সাপ্তাহিক ট্রেন্ড লাইন দেখাচ্ছে যে প্রাইস উপরের দিকে উঠবে এবং বর্তমানে সাপোর্ট লেভেল 1.1733 তে পরীক্ষিত হচ্ছে।

GBP/USD:

সাপ্তাহিক টাইমফ্রেমে 1.31 থেকে নেমে যাওয়ার পরে এই সপ্তাহে প্রাইস বিয়ারিশ হয়ে 1.30 তে নেমে এসেছে এবং ডেইলি টাইমফ্রেমে শুটিং স্টার ক্যান্ডেল স্টিক প্যাটার্ন তৈরি হয়েছে।

ট্রেডিশনাল টেকনিকাল ফ্যাশনে চার ঘন্টার প্রাইস সোমবারে 1.31 এর নীচে পরীক্ষিত হয়েছে একটি হাফ হার্টেড হ্যাংগিং ম্যান ক্যান্ডেল স্টিক প্যাটার্ন তৈরি করে এবং সাপোর্ট 1.3017 থেকে সাপোর্ট পাচ্ছে, যে লেভেলটি সর্বনিম্ন 1.2518 থেকে শুরু হয় ট্রেন্ড লাইন সাপোর্ট এবং 1.30 এর কাছেই অবস্থান করছে। উপরে উল্লেখিত টেকনিক্যাল কম্বিনেশনটির তেমন কোনো সেলিং প্রেশার নেই এবং আগের লসকে পুনরুদ্ধার করে প্রাইস উপরের দিকে নিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

গত সপ্তাহে 280 পিপ্স বৃদ্ধি পাওয়ার পরে এই সপ্তাহে প্রয়াস 2020 সালের ওপেনিং লেভেল 1.3250 তে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে সাপ্তাহিক টাইমফ্রেমে। টেকনিকাল ট্রেডাররা খেয়াল করবে যে 161.8% Fibonacci extension point at 1.3308 তে অতিরিক্ত রেসিস্টেন্স দেখা যেতে পারে।

ডেইলি টাইমফ্রেমে Quasimodo রেসিস্টেন্স 1.3173 কার্যকর অবস্থায় রয়েছে, যেখানে এই লেভেলটি ব্রেক করলে রেসিস্টেন্স লেভেল 1.3250 তে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। অন্যদিকে 1.2846 থেকে 1.2769 এর মধ্যে সাপোর্ট পাওয়া যেতে পারে, যার পরেই রয়েছে 200-day SMA (orange – 1.2700)।

বিবেচনার জায়গাগুলো:

সাপ্তাহিক টাইমফ্রেমে সাম্প্রতিক ট্রেন্ড লাইন রেসিস্টেন্স ব্রেক করেছে যদিও 2019 সালের 9ই ডিসেম্বরের সর্বোচ্চ 1.3514 এখনো স্পর্শের বাহিরে রয়েছে। এই লেভেলটি ব্রেক করলে ঊর্ধ্বমুখী ট্রেন্ড এর পরিবর্তন হবে এবং দীর্ঘ মেয়াদে মূল্য বৃদ্ধি পেতে পারে।

চার ঘন্টার সাপোর্ট 1.3017 প্রাইসকে 1.31 এ নিয়ে যেতে পারে, যেখানে সাপ্তাহিক প্রাইস 2020 সালের ওপেনিং লেভেল 1.3250 তে যাওয়ার সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে। যদিও এটা উপরে উঠার আগে বায়ারদের ডেইলি Quasimodo রেসিস্টেন্স 1.3173 কে অতিক্রম করতে হবে।

AUD/USD:

চার ঘন্টার টাইমফ্রেমে সর্বনিম্ন 0.7063 থেকে শুরু হওয়া ট্রেন্ড লাইন সাপোর্ট এর নিচে মূল্য পরীক্ষিত হয়েছে এবং পরবর্তীতে এই লেভেলটি রেসিস্টেন্স হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে, এবং পরবর্তীতে 0.71 এর আশেপাশে সেলিং শুরু হয়েছে। প্রাথমিক ট্রেন্ড ঊর্ধ্বমুখী হলেও উপরে উল্লেখিত ট্রেন্ড লাইন ব্রেক করার ফলের সাপ্তাহিক টাইমফ্রেমে 0.7147 এ বায়াররা এবং সেলাররা নিজেদের জায়গা দখল করার লড়াই করছে। এছাড়া ডেইলি প্রাইস ও সাপোর্ট লেভেল 0.7049 এর দিকে যাচ্ছে।

যদিও 0.71 থেকে থেকে কিছুটা বায় বৃদ্ধি পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে, চার ঘন্টার ট্রেডাররা সর্বনিম্ন 0.6832 কে ব্রেক করে নীচে নেমে যাওয়ার সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে, যার পরে রয়েছে সাপোর্ট লেভেল 0.7042।

বিবেচনার জায়গাগুলো:

0.71 কে ব্রেক করে নীচে নেমে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে আজকে এবং চার ঘন্টার ট্রেন্ড লাইন সাপোর্ট 0.6832 কে টার্গেট করা হয়েছে, যার পরে রয়েছে ডেইলি সাপোর্ট 0.7049 এবং চার ঘন্টার সাপোর্ট 0.7042।

XAU/USD (GOLD):

GOLD এর জন্য এই সপ্তাহটি কিছুটা চুপচাপ অবস্থায় শুরু হয়েছে একটি ইনডিসিশন ক্যান্ডেল গঠন করে।

সাপ্তাহিক টাইমফ্রেম অনুযায়ী XAU/USD পেয়ারটি তার গত সপ্তাহের মূল্যবৃদ্ধি অব্যাহত রাখতে যাচ্ছে, যেখানে $74 বৃদ্ধি পেয়ে সর্বকালের সর্বোচ্চ লেভেল 1983.1 এ গিয়েছিল। প্রাইস বর্তমানে চার্টের বাহিরে অবস্থান করছে যার ফলে মার্কেট এখনো বায়ারদের দখলে রয়েছে। যদি মূল্য হ্রাস পায় তাহলে সবাই 1921.0 এর প্রতি নজর রাখবে সাপোর্ট লেভেল হিসেবে।

ডেইলি টাইমফ্রেমে সাপ্তাহিক টাইমফ্রেমের মতোই এই সপ্তাহে প্রাইস 1921.0 তে নেমে আসতে পারে, যার নিচেই রোয়েকব সাপোর্ট লেভেল 1911.9।

চার ঘন্টার টাইমফ্রেমে সর্বোচ্চ 1986.7 তে যাওয়ার পরে সর্বনিম্ন 1907.0 থেকে নেওয়া লোকাল ট্রেন্ড লাইন সাপোর্ট এর সাহায্যে পেয়েছে এবং এর ফলে বায়াররা তাদের বুলিশ স্ট্রাটেজি নির্ধারণ করার জন্য একটি বেস পেয়ে গেছে। এই ট্রেন্ড লাইন ব্রেক করলে প্রাইস 1921.0 তে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

বর্তমান প্রাইসের উপরে প্রধান টার্গেট হিসেবে রয়েছে 2000.0 লেভেলটি।

বিবেচনার জায়গাগুলো:

বর্তমান মার্কেটে আরো বায়িং বৃদ্ধি পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। লোকাল চার ঘন্টার সাপোর্ট থেকে পাওয়া চার ঘন্টার বুলিশ ক্যান্ডেল স্টিক সিগন্যাল মূল্য বৃদ্ধি করার জন্য যথেষ্ট। অন্যদিকে প্রাইস 1921.0 গেলেও বায়ারদের উদ্বুদ্ধ করবে আরো বায় করার জন্য।

কীভাবে শেয়ার বাজারে ঝুঁকি কমিয়ে আনবেন?