দিনশেষে বাংলাদেশ শেয়ার বাজার ঊর্ধ্বমুখী; বিনিয়োগকারীরা সতর্ক অবস্থানে

দিনশেষে বাংলাদেশ শেয়ার বাজার ঊর্ধ্বমুখী; বিনিয়োগকারীরা সতর্ক অবস্থানে দিনশেষে বাংলাদেশ শেয়ার বাজার ঊর্ধ্বমুখী; বিনিয়োগকারীরা সতর্ক অবস্থানে

MarketDeal24.Com – সোমবার বাংলাদেশ শেয়ার বাজার কিছুটা ঊর্ধ্বমুখী অবস্থায় কার্যদিবস পার করেছে। তবে টার্নওভার এখনো কম।

মানুষের ভিতর এখনো করোনা ভাইরাস আতংক কাজ করছে। বিনিয়োগকারীরা শঙ্কায় রয়েছে। ফ্লোর প্রাইস সিস্টেমের কারণে এখনো অনেক বিনিয়োগকারী বাজারে অংশগ্রহণের সাহস পাচ্ছেন না।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের মুখ্য সূচক DSEX গত পাঁচ কার্যদিবসে ১৯ পয়েন্টস যোগ করেছে।

করোনার ফলে ক্রেতাবিহীন শেয়ার বাজার বিনিয়োগকারীদের উদ্বিগ্ন করে তুলেছে। যার ফলে শেয়ার বাজারে অংশগ্রহণ কমে গেছে।

Forexmart

ব্লু চিপস হিসেবে পরিচিত DS30 সূচক ৩.৭৮ পয়েন্টস বেড়ে ১,৩৩৫ এ অবস্থান নেয়। DSE শরীয়াহ সূচক DSES ১.৮২ পয়েন্টস বেড়ে সর্বশেষ ৯২৩ পয়েন্টসে অবস্থান নেয়।

টার্নওভারের আর্থিক মূল্যমান এখনো এক বিলিয়নের নিচে যা আজ ছিল ১.৫৪ বিলিয়ন টাকা। যা গতকালকে ছিল ২৫.৪৩ বিলিয়ন।

২৩,৩২৩টি লেনদেন সম্পন্ন হয় আজ। যেখানে ৪৬.৯১ মিলিয়ন শেয়ার এবং মিউচুয়াল ফান্ড ছিল।

Beximco Pharma

Beximco Pharma ছিল টার্নওভার তালিকার শীর্ষে। যা হাতবদলের আর্থিক মূল্য ছিল ১৬৩ মিলিয়ন টাকা। এরপর ছিল Bangladesh Submarine Cable Company, GlaxoSmithKline Bangladesh, Indo-Bangla Pharma এবং Square Pharma।

বর্তমান ফ্লোর প্রাইস সীমাবদ্ধতার কারণে বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান এবং ব্যক্তিগত পর্যায়ের বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহণ ছিল না বললেই চলে।

GSK Bangladesh আজ সবচেয়ে লাভজনক অবস্থায় দিন শেষ করেছে। যা বৃদ্ধি পেয়েছে ৪.৩৩% অপরদিকে Dacca Dyeing সবচেয়ে খারাপ অবস্থায় দিন শেষ করেছে যা হ্রাস পেয়েছে ৮.৩৩%।

চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও আজ সামান্য ঊর্ধ্বমুখী অবস্থা লক্ষ্য করা গেছে যেখানে CASPI ২৪.৮০ পয়েন্টস বেড়ে ১১,৩০৮ এ এবং CSCX ১৬.৭৭ পয়েন্টস বেড়ে ৬,৮৪৬ এ গিয়ে দাঁড়ায়।

সেখানকার লেনদেনে ২৯টি শেয়ারের মূল্য ঊর্ধ্বমুখী, ১৩টি নিম্নমুখী এবং ৯৬টি আছে অপরিবর্তিত অবস্থায়। যেখানে ১৪.১৬ মিলিয়ন শেয়ার এবং মিউচুয়াল ফান্ড লেনদেন হয়। টার্নওভারে যার আর্থিক মূল্যমান ৭৮৬ মিলিয়ন টাকা।

জাপানের শেয়ার বাজার নিম্নমুখী; Nikkei 225 কমেছে 2.30%

leave a reply