পাওয়েলের বক্তব্যের পর ডলার চাপের মুখে; মার্কেটে পড়েনি ট্রাম্পের হুমকির প্রভাব

পাওয়েলের বক্তব্যের পর ডলার চাপের মুখে; মার্কেটে পড়েনি ট্রাম্পের হুমকির প্রভাব পাওয়েলের বক্তব্যের পর ডলার চাপের মুখে; মার্কেটে পড়েনি ট্রাম্পের হুমকির প্রভাব

MarketDeal24.Com – পাওয়েলের বক্তৃতার পর মার্কিন ডলার আবার পিছু হটেছে। চীনের সাথে যাবতীয় সম্পর্ক ছিন্ন করার ব্যাপারে হুমকি দিচ্ছে ট্রাম্প কিন্তু তারপরও স্টক ঊর্ধ্বমুখী।

ফেডারেল রিজার্ভ চেয়ারম্যান জেরেমি পাওয়েল মুদ্রাস্ফীতি সংক্রান্ত নতুন পলিসি ফ্রেমওয়ার্ক শিফট ঘোষণা করেছে। যেখানে সুদের হার হ্রাস পেয়েছে এবং দুর্বল হয়ে পড়েছে ডলার।

AUD/USD এবং GBP/USD পেয়ারটি ঊর্ধ্বমুখী অবস্থানে। ডলারের মূল্যমান সামান্য কমেছে কেননা এরই মধ্যে মুদ্রাস্ফীতি নিম্নমুখী অবস্থায়। সুদের হার আগামী দুই বছর নিম্নমুখী অবস্থাতেই থাকবে।

ডলার নিম্নমুখী হলেও গোল্ড ঊর্ধ্বমুখী অবস্থায়। সিলভারের মূল্যমান এই মুহূর্তে গোল্ডকেই অনুসরণ করছে।

Forexmart

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প রিপাবলিকান কনভেনশনে বক্তৃতা দিয়েছেন। চীনের সাথে যাবতীয় সম্পর্ক শেষ করার হুমকি এখনো বহাল রয়েছে। তবে স্টক মার্কেট তার চাহিদা হারায় নি। অপরদিকে সেইফ হ্যাভেন ইয়েন নতুন করে কোনো চাহিদা সৃষ্টি করতে পারেনি।

জুলাই মাসে মার্কিন ব্যক্তিগত ব্যয় বেড়েছে এবং আয় কমেছে। দ্বিতীয় প্রান্তিকে মার্কিন জিডিপি -32.9% থেকে -31.7% এ এসে দাঁড়িয়েছে। বেকার ভাতার আবেদন ১ মিলিয়নের কাছাকাছি এলেও বেকারত্বের সংখ্যা বেড়ে ১৪.৫ মিলিয়নে গিয়ে দাঁড়িয়েছে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় মৃতের সংখ্যা এক লাখ আশি হাজারে গিয়ে দাঁড়িয়েছে অপরদিকে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫.৮ মিলিয়নে। স্পেন, ফ্রান্স এবং জার্মানিতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে আশঙ্কাজনক হারে। দ্বিতীয় প্রান্তিকের জিডিপি-র তথ্য প্রকাশ এখনো বাকি। EUR/USD কারেন্সি পেয়ারটি লেনদেন হচ্ছে 1.1850 তে, যার নেপথ্যে ডলারের দুর্বল অবস্থান।

দ্য টাইমসের প্রতিবেদন জানাচ্ছে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন পোস্ট ব্রেক্সিট ট্রেড রক্ষার লক্ষ্যে একটি নির্দেশনা জারি করেছে এবং এ বিষয়ে শীঘ্রই বৈঠক হবে। অ্যান্ড্রু বেইলি যিনি ব্যাংক অভ ইংল্যান্ডের গভর্নর তিনি ভার্চুয়াল মাধ্যমে জ্যাকসন হোলে বক্তৃতা প্রদান করবেন। GBP/USD পেয়ারটি লেনদেন হচ্ছে 1.3250 এর কাছাকাছি।

WTI Oil লেনদেন হচ্ছে $43 এর নিচে কেননা হ্যারিকেন লরা টেক্সাসের তেল শোধনাগারে কোনো হামলা চালায়নি। মে মাসে তাই 4.5% বৃদ্ধি পেয়েছে মূল্যমান।

USD/CAD পেয়ারটি লেনদেন হচ্ছে 1.31 এর কাছাকাছি যার নেপথ্যে ডলারের দুর্বল অবস্থান এবং তেলের মূল্যের বৃদ্ধি। Bitcoin লেনদেন হচ্ছে $11,400 এর কাছাকাছি।

বিদেশে কর্মসংস্থান তৈরিকারী মার্কিন সংস্থাগুলোর উপর শুল্ক আরোপের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে ট্রাম্প

leave a reply