ফরেক্সে লোকসান এড়ানোর দশটি উপায় !

ফরেক্সে লোকসান এড়ানোর দশটি উপায় ! ফরেক্সে লোকসান এড়ানোর দশটি উপায় !

MarketDeal24.Com – আন্তর্জাতিক ফরেক্স মার্কেট হচ্ছে বিশ্বের সর্ববৃহৎ ফিনানসিয়াল মার্কেট। এখানে রয়েছে মুনাফা অর্জনের ব্যাপক সুযোগ যা সকল স্তরের ফরেন-এক্সচেঞ্জ ট্রেডারদের আকৃষ্ট করে। কেবল শিখতে শুরু করা নব্য ট্রেডার থেকে শুরু করে বহু বছরের অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ফিনানসিয়াল মার্কেটার সবাই এখানে তৎপর। এই মার্কেটে প্রবেশ করা সহজ—তুলনামূলক স্বল্প খরচে যেকোন সময় এখানে কাজ শুরু করা যায়—তাই অনেক ফরেক্স ট্রেডার দ্রুত মার্কেটে প্রবেশ করে। কিন্তু প্রাথমিকভাবে লোকসান এবং বাধার সম্মুখীন হয়ে আবার দ্রুতই বেরিয়ে যায়। ফরেক্স ট্রেডিং-এর প্রতিযোগিতাপূর্ণ বাজারে টিকে থাকার জন্য দশটি টিপস দেয়া হলো যা ব্যবহার করে ট্রেডাররা লোকসান এড়িয়ে রেসে টিকে থাকতে পারবে।

সঠিক হোমওয়ার্ক করুন

ফরেক্সে প্রবেশ করা সহজ মানে এই নয় যে অধ্যবসায়ের প্রয়োজন নেই। বরং একজন ট্রেডারকে সফল হতে হবে ফরেক্সের ব্যাপারে বিষদ জ্ঞান অর্জন করা জরুরী।

ট্রেডিং বিষয়ক জ্ঞানের সিংহভাগ যদিও বাস্তব ট্রেডিং-এর অভিজ্ঞতা থেকে অর্জন করতে হয়, তবু একজন ট্রেডারের উচিত ফরেক্স মার্কেটের ব্যাপারে সবকিছু বিস্তারিত জানা, যার মধ্যে ভৌগোলিক এবং রাজনৈতিক বিষয়াদি যা কিনা ট্রেডারের পছন্দনীয় মুদ্রার মূল্যে প্রভাব রাখতে পারে।
হোমওয়ার্ক বিষয়টা চলমান কারণ ট্রেডারকে বাজারের পরিবর্তনশীল অবস্থা, নিয়মাবলী, এবং বিশ্ব পরিস্থিতির সঙ্গে খাপ খাইয়ে নেবার জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে। এই রিসার্চ প্রসেসেরই একটি অঙ্গ হচ্ছে ট্রেডিং প্ল্যান প্রস্তুত করা। ট্রেডিং প্ল্যান হচ্ছে একটি সিস্টেমেটিক পদ্ধতি যার মাধ্যমে বিনিয়োগকে যাচাই-বাছাই করা, ঝুঁকির পরিমাপ—অর্থাৎ কতটুকু ঝুঁকি আছে বা নেয়া উচিত হবে নির্ধারণ করা, এবং স্বল্প ও দীর্ঘ মেয়াদি বিনিয়োগের লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়ে থাকে।

নির্ভরযোগ্য ব্রোকার খুঁজে বের করুন

Forexmart

অন্যান্য মার্কেটের তুলনায় ফরেক্স ইন্ডাস্ট্রিতে ত্রুটির পরিমাণ অনেক কম। সেকারণে কম নামডাক আছে এমন ফরেক্স ব্রোকারদের মাধ্যমেও ব্যবসা করা সম্ভব। তবে ডিপোজিটের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ফরেক্স ট্রেডারদের শুধুমাত্র এমন কোন ফার্মে একাউন্ট খোলা উচিত যেটা ন্যাশনাল ফিউচারস এসোসিয়েশন (NFA)-এর সদস্য এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কমোডিটি ফিউচারস ট্রেডিং কমিশন (CFTC)-তে একজন ফিউচার কমিশন মার্চেন্ট হিসেবে রেজিস্টার্ড। একইভাবে আমেরিকার বাইরের প্রতিটা দেশেও তাদের নিজস্ব নিয়ন্ত্রক দপ্তর আছে যেখানে বৈধ ফরেক্স ব্রোকাররা রেজিস্টার্ড থাকে।

ট্রেডারদের একই সঙ্গে ব্রোকারের একাউন্টের অফারগুলো যাচাই করা উচিত। লেভারেজ এমাউন্ট, কমিশন এবং স্প্রেড, প্রাথমিক ডিপোজিট, একাউন্টের ফান্ডিং এবং উইথড্রয়াল পলিসি, ইত্যাদি পরীক্ষা করে দেখা আবশ্যক। একজন ভাল কাস্টমার সার্ভিস রিপ্রেজেন্টেটিভের পক্ষে এইসব তথ্য এবং ফার্মের সেবা এবং নিয়মাবলীর ব্যাপারে প্রশ্নের উত্তর দিতে পারা বাঞ্ছনীয়।

প্র্যাকটিস একাউন্ট ব্যবহার করুন

প্রায় সব প্লাটফর্মেরই প্র্যাকটিস একাউন্ট এর সুবিধা আছে। অনেক সময় একে সিমুলেটেড একাউন্ট বা ডেমো একাউন্টও বলা হয়ে থাকে, যা ব্যবহার করে ট্রেডাররা বিনিয়োগ ছাড়াই কল্পিত ট্রেড করতে পারে। খুব সম্ভব প্র্যাকটিস একাউন্টের সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে যে এটা ব্যবহার করে ট্রেডাররা অর্ডার-এন্ট্রি কৌশলগুলোতে দক্ষ হয়ে উঠতে পারে।
একটা ট্রেডার একাউন্ট (বা ট্রেডারের কনফিডেন্স)-এর জন্য ওপেনিং বা এক্সিটিং-এর সময় করা ভুলের চেয়ে খারাপ আর কিছু হতে পারে না। অনেক সময় একজন ট্রেডার একটি ট্রেড শেষ না করে ভুল বা দুর্ঘটনা বসত একটা লোকসান খাতে বিনিয়োগ করে বসে। অর্ডার এন্ট্রিতে একাধিক ভুল বড় ধরনের ট্রেডকে বড় ধরনের লোকসানের দিকে ধাবিত করতে পারে। আর্থিক ক্ষতি ছাড়াও এই ধরনের ট্রেডিং ভুল মানসিক চাপ সৃষ্টি করে। অনুশীলনই দক্ষতার রহস্য: অর্থ বিনিয়োগের আগে অর্ডার এন্ট্রি দিয়ে এক্সপেরিমেন্ট করে নেয়া উচিত।

চার্ট পরিষ্কার রাখুন

একজন ফরেক্স ট্রেডার একাউন্ট খুললে তার ট্রেডিং প্লাটফর্মের সব টেকনিক্যাল এনালাইসিস টুল ব্যবহার করে সুবিধা নেয়ার ইচ্ছা জাগতে পারে। অবশ্যই এইসব ইনডিকেটরের অনেকগুলোই ফরেক্স মার্কেটের জন্য উপযোগী কিন্তু মনে রাখা উচিত যে এনালাইসিস টেকনিক কার্যকরী হওয়ার জন্য সেগুলো সংখ্যায় কম হতে হবে। একই ধরনের অনেকগুলি ইনডিকেটর ব্যবহার করলে—যেমন দুটো ভোলাটালিটি ইনডিকেটর বা দুটো অসিলেটর—তা বাহুল্যে পরিণত হতে পারে অথবা বিপরীতমুখী সিগনাল দিতে পারে। এমনটা না করাই উত্তম।

যেসব এনালাইসিস টেকনিক প্রতিনিয়ত ব্যবহার করে ট্রেডিং-এর মান বৃদ্ধি করা হচ্ছে না তা চার্ট থেকে সরিয়ে ফেলা উচিত। সেই সঙ্গে চার্টে যেসব টুল প্রয়োগ করা হয়েছে তাছাড়াও গোটা কর্মস্থানের দিকে নজর রাখা দরকার। রঙ, ফন্ট, প্রাইস বার-এর ধরন (লাইন, ক্যান্ডেল বার, রেঞ্জ বার, ইত্যাদি) দিয়ে একটা সহজে পাঠযোগ্য চার্ট তৈরি করতে হবে যাতে করে ট্রেডার মার্কেটের পরিবর্তনশীল কন্ডিশনের মুখে কার্যকর সিদ্ধান্ত নিতে পারে।

আপনার ট্রেডিং একাউন্টকে নিরাপদ রাখুন

যদিও ফরেক্স ট্রেডিং-এর মূল লক্ষ্য টাকা উপার্জন, একই সঙ্গে টাকা হারানোর ব্যাপারেও সতর্ক থাকা দরকার। শেখা দরকার কীভাবে লোকসান এড়ানো যায়। এবং এইজন্য দরকার সঠিক উপায়ে মানি ম্যানেজমেন্ট। অনেক অভিজ্ঞ ট্রেডারই একমত হবে যেকোন অবস্থান থেকেই ফরেক্সে টাকা আয় করা সম্ভব। মুখ্য বিষয় হচ্ছে ট্রেড থেকে কতটুকু সুবিধা আদায় করে নেয়া যাচ্ছে।


এর একটা অংশ হচ্ছে লোকসান মেনে নিয়ে পিছিয়ে আসা। এবং সব সময় একটা নিরাপত্তামূলক স্টপ লস ব্যবহার করা। এটা একটা কৌশল যা তৈরি করা হয়েছে ইতিমধ্যে অর্জিত মুনাফার সুরক্ষা আর সম্ভাব্য ভবিষ্যৎ লোকসানকে রুখে দেয়ার জন্য। স্টপ লস অর্ডার বা লিমিট অর্ডার হচ্ছে একটি কার্যকরী পদ্ধতি যা অতিরিক্ত লোকসান না হওয়া নিশ্চিত করে। এছাড়াও, ট্রেডার চাইলে একটা দৈনিক সর্বোচ্চ লোকসানের অংক নির্ধারণ করে দিতে পারে।

যার বেশি টাকা হারানোর উপক্রম হলে সব পজিশন বন্ধ হয়ে যাবে এবং পরবর্তী ট্রেডিং সেশনের আগে আর কোন নতুন ট্রেড চালু হবে না। লোকসান নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি লাভকে সুরক্ষিত করাও একই রকম জরুরী।

মানি ম্যানেজমেন্ট কৌশল যেমন ট্রেইলিং স্টপস (বর্তমান বাজারদরের নিরাপত্তা সূচকের একটা নির্দিষ্ট শতাংশ দূরত্বে স্থাপন করা স্টপ অর্ডার) ব্যবহার করে ট্রেড রুমকে বিকাশ করতে দিয়েও একই সঙ্গে মুনাফাকে সংরক্ষণ করা যায়।

লাইভে যাওয়ার সময় ছোট থেকে শুরু করুন

একজন ট্রেডার ঠিক মতো প্রস্তুতি নিয়ে, প্র্যাকটিস একাউন্ট দিয়ে অনুশীলন করে, একটা ট্রেডিং প্ল্যান দাঁড়া করায় তখন লাইভে যাওয়ার সময় হয়—অর্থাৎ, টাকা ব্যবহার করে ট্রেডিং করা। যতই প্র্যাকটিস ট্রেডিং করা হোক না কেন, সত্যিকারের ট্রেডিং-এর অভিজ্ঞতা তাতে অর্জন করা যায় না। সেকারণেই লাইভে যাওয়ার সময় ছোট থেকে শুরু করা উচিত।
লাইভ ট্রেডিং-এ না করলে আবেগ এবং স্লিপেজের (প্রত্যাশিত মূল্য এবং বাস্তবিক ট্রেডিং মূল্যের তফাৎ) ব্যাপারগুলো পুরোপুরি বুঝে ওঠা যায় না। আবার ব্যাকটেস্টিং বা প্র্যাকটিস ট্রেডিং-এ দারুণ ফল দেখানো ট্রেডিং প্ল্যানও লাইভ মার্কেটে মুখ থুবড়ে পড়তে পারে। ছোট থেকে শুরু করলে একজন ট্রেডার সম্পূর্ণ একাউন্ট হারানোর ঝুঁকি ছাড়াই তার নিজের আবেগ এবং ট্রেডিং প্ল্যানের সঠিক ব্যবহার বুঝতে শিখবে, এবং অর্ডার এন্ট্রির বিষয়ে অনুশীলন করতে পারবে।

প্রয়োজন মাফিক লেভারেজ ব্যবহার করুন

ট্রেডারদের লেভারেজের লেভারেজের পরিমাণের দিক থেকে ফরেক্স ট্রেডিং অনন্য। ফরেক্সের জনপ্রিয়তার একটা বড় কারণ হচ্ছে এখানে রয়েছে অল্প বিনিয়োগে অধিক মুনাফার সুযোগ—অনেক সময় সেই বিনিয়োগ হতে পারে মাত্র ৫০ ডলার বা সম পরিমাণ টাকা। লেভারেজের সঠিক ব্যবহার বৃদ্ধির সুযোগ সৃষ্টি করে। কিন্তু মনে রাখা দরকার যে লেভারেজ যেমন লাভকে বর্ধিত করতে পারে ঠিক সেই একই পদ্ধতিতে লোকসানও বর্ধিত করতে পারে।

একাউন্ট ব্যালেন্সের বিপরীতে পজিশন সাইজ নির্ধারণ করে একজন ট্রেডার লেভারেজ নিয়ন্ত্রণ করতে পারে। উদাহরণ স্বরূপ, যদি একজন ট্রেডারের ফরেক্স একাউন্টে ১০,০০০ ডলার থাকে তাহলে ১০০,০০০ ডলার পজিশন (যেটা কিনা এক স্ট্যান্ডার্ড লট) ১০:১ লেভারেজ নির্ধারণ করবে। ট্রেডার চাইলি আরো বড় পজিশনও খুলতে পারে, তাতে লেভারেজ আরো বৃদ্ধি পাবে, তবে ছোট পজিশন ব্যবহার করলে ঝুঁকি কমে।

রেকর্ড ভালভাবে সংরক্ষণ করুন

ট্রেডিং জার্নাল ব্যবহার করে ফরেক্স ট্রেডিং-এর সাফল্য এবং ব্যর্থতা উভয় বিষয়েই জ্ঞান অর্জন করা যায়। ট্রেডিং এক্টিভিটি যেমন তারিখ, কী ট্রেড করা হয়েছে, মুনাফা, লোকসান, এবং সবচেয়ে জরুরী ভিত্তিতে ট্রেডারের পারফর্ম্যান্স এবং ওই সময়ের আবেগের ব্যাপারে নথি সংরক্ষণ করলে ভবিষ্যতে একজন সফল ট্রেডার হয়ে ওঠার পথে অভিনব সুবিধা পাওয়া যাবে।

নিয়মিত রিভিউ করা হলে ট্রেডিং জার্নাল অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে ফিডব্যাক দিবে যা থেকে বহু কিছু শেখা সম্ভব। আইনস্টাইন বলেছেন, “ভিন্ন ফলাফলের আশায় একই কাজ বারবার করতে থাকা হচ্ছে উন্মাদনা।” ভাল ট্রেডিং জার্নাল এবং রেকর্ড সংরক্ষণ না থাকলে ট্রেডাররা বারবার একই ভুল করতে থাকবে এবং তাহলে তাদের সফল হবার বা মুনাফা লাভ করার সম্ভাবনা হ্রাস পাবে।

ট্যাক্সের গুরুত্ব এবং ব্যবহার বুঝতে শিখুন

ট্যাক্স প্রদানের সময় ফরেক্স ট্রেডিং-এর জন্য প্রযোজ্য ট্যাক্সের গুরুত্ব এবং নিয়মাবলী জানা আবশ্যক। পেশাদার এবং যোগ্য একাউন্ট্যান্ট বা ট্যাক্স বিশেষজ্ঞের সঙ্গে পরামর্শ করলে হুট করে কোন ট্যাক্স সংক্রান্ত ঝামেলার মুখোমুখি হবার ঝুঁকি কমে এবং একই সঙ্গে নানা ধরনের ট্যাক্স আইনের ফাঁক-ফোকরের সুবিধাও নেয়া যায়।

যেমন মার্কেট টু মার্কেট একাউন্টিং (একটি অ্যাসেটের মূল্য রেকর্ড করে তার বর্তমান বাজার মূল্যের প্রতিফলন ঘটানো)।

যেহেতু ট্যাক্স আইন প্রতিনিয়ত পরিবর্তন হয় তাই একজন বিশ্বস্ত এবং নির্ভরযোগ্য পেশাদার ট্যাক্স বিশেষজ্ঞের সঙ্গে সুসম্পর্ক গড়ে তোলা জরুরী। প্রয়োজনে সে আপনাকে ট্যাক্স সংক্রান্ত সকল বিষয়ে সহায়তা করতে পারবে।

ট্রেডিংকে ব্যবসা হিসেবে নিন

ফরেক্স ট্রেডিংকে একটি ব্যবসা হিসেবে নেয়া জরুরী। মনে রাখতে হবে, দীর্ঘমেয়াদে প্রত্যেকটি লাভ বা লোকসান এককভাবে কিছু নির্ধারণ করে না। বরং সময়ের সঙ্গে সঙ্গে ট্রেডিং ব্যবসাটা কীভাবে কই গিয়ে পৌঁছল সেটা হচ্ছে কথা। আর সেকারণেই ট্রেডারদের উচিত লাভ-লোকসান নিয়ে অতিরিক্ত আবেগী হয়ে না উঠে নিয়মতান্ত্রিকভাবে কাজ চালিয়ে যাওয়া।

অন্য যেকোন ব্যবসার মতোই ফরেক্স ট্রেডিং-এও খরচ, লোকসান, ট্যাক্স, ঝুঁকি এবং অনিশ্চয়তা আছে। তাছাড়া সব ক্ষুদ্র ব্যবসা যেমন সাফল্যের মুখ দেখে না, তেমনি সব ফরেক্স ট্রেডারও মুনাফা করতে পারে না। পরিকল্পনা, বাস্তবসম্মত লক্ষ্য নির্ধারণ, নিয়মানুবর্তিতা, এবং সাফল্য আর ব্যর্থতা উভয়ের থেকে শিক্ষা গ্রহণের মাধ্যমেই কেবল ফরেক্স ট্রেডার হিসেবে একটি সফল, দীর্ঘমেয়াদী ক্যারিয়ার গড়ে তোলা সম্ভব।

পরিশিষ্ট

বিশ্বব্যাপী বিস্তৃত ফরেক্স মার্কেট ট্রেডারদের কাছে খুবই আকর্ষণীয় কারণ এখানে সহজেই একাউন্ট খোলা যায়, রয়েছে চব্বিশ ঘণ্টা ট্রেড করার সুযোগ, এবং ব্যাপক লেভারেজ। ব্যবসায়িকভাবে কাজ করলে ফরেক্স ট্রেডিং বেশ লাভজনক।

কিন্তু সাফল্যের মুখ দেখা খুবই চ্যালেঞ্জিং এবং সময় সাপেক্ষ। ট্রেডাররা তাদের লোকসান কমিয়ে রাখার জন্য পদক্ষেপ নিলে সফল হবার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পাবে। রিসার্চ, অতিরিক্ত লেভারেজ ব্যবহার না করা, মানি ম্যানেজমেন্ট টেকনিকের ব্যবহার, এবং সর্বোপরি সার্বক্ষণিক ফরেক্স ট্রেডিংকে ব্যবসায়িক দৃষ্টিকোণ থেকে দেখা অপরিহার্য।

leave a reply