ADVERTISING

ফরেক্স মার্কেট: বেড়েই চলেছে করোনা সংক্রমণ; EU বৈঠক নিয়ে অস্থিতিশীল বাজার

ফরেক্স মার্কেট: বেড়েই চলেছে করোনা সংক্রমণ; EU বৈঠক নিয়ে অস্থিতিশীল বাজার ফরেক্স মার্কেট: বেড়েই চলেছে করোনা সংক্রমণ; EU বৈঠক নিয়ে অস্থিতিশীল বাজার

MarketDeal24.Com – ২০শে জুলাই সোমবার, ফরেক্স মার্কেট এর জন্য একজন বিনিয়োগকারীর যে সকল তথ্য জেনে রাখা প্রয়োজন:

নতুন সপ্তাহে আমেরিকায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েছে, অপরদিকে করোনা ভ্যাকসিনের আশা এখনো মানুষের মাঝে বিদ্যমান। এছাড়া ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের বৈঠকে নতুন কোনো পদক্ষেপ আগমনের আশা নতুন করে দেখছে বিনিয়োগকারীরা।

আমেরিকায় এ মুহূর্তে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৩.৭ মিলিয়ন এবং মৃতের সংখ্যা ১৪০,০০০ ছাড়িয়েছে। লস অ্যাঞ্জেলেস আরেকটি লকডাউনের ঘোষণা দেয়ার দ্বারপ্রান্তে। ফ্লোরিডায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেছে।

কোভিড-১৯ ইমিউনাইজেশন ট্রায়াল অনুষ্ঠিত করতে চলেছে AstraZeneca এবং Oxford University। রাশিয়ার তরফ থেকে ভ্যাকসিন এক্সপেরিমেন্টের ব্যাপারে জানানো হয়েছে।

Forexmart

যদিও করোনা সংক্রমণের বিষয়টিকে গুরুত্ব দিচ্ছেন না ডোনাল্ড ট্রাম্প। করোনা পরিস্থিতি অবহেলার কারণে তা ট্রাম্পের জনপ্রিয়তায় ভাটা পড়ার ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখছে। ইকোনমিস্ট পত্রিকার গবেষণা অনুযায়ী পুনরায় তার নির্বাচিত হওয়ার সম্ভাবনা ৮%।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প রিপাবলিকান নেতাদের সাথে দেখা করবেন পরবর্তী আর্থিক সহায়তা পদক্ষেপ নিয়ে আলোচনার জন্য। আলোচনা হবে বেকারত্ব সংক্রান্ত পদক্ষেপ নিয়ে।

ব্রাসেলসে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের নেতাদের বৈঠক নিয়ে সবাই আগ্রহী দৃষ্টিতে অপেক্ষা করছে। অনুদান হিসেবে ৩৯০ বিলিয়ন ইউরো অনুদানের সম্ভাবনা রয়েছে। যদিও প্রস্তাব দেয়া হয়েছিল ৫০০ বিলিয়ন ইউরোর। জার্মানি এবং ফ্রান্স এই বৈঠক থেকে সরে আসার চেষ্টা করছে। EUR/USD পেয়ারটি বৃদ্ধি পেয়ে ১.১৪৫০ তে পৌঁছে গেছে।

Gold

Gold এর মূল্যমান $1,800 এর উপর গিয়ে স্থির হয়েছে। গত সপ্তাহে যার মূল্যমান ছিল এর চেয়ে কম। ধারণা করা হচ্ছে মূল্যমান $2,000 এর কাছাকাছি যাবে এবং মূল্যবান ধাতুটির চাহিদাও বাড়বে।

ধারণা করা হচ্ছে ব্রেক্সিট চুক্তি ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের ছায়াই অনুসরণ করবে।

হংকংয়ের সাথে চুক্তি বাতিল করতে চলেছে যুক্তরাজ্য। চীনের রাষ্ট্রদূত যুক্তরাজ্যকে জানিয়েছে ব্রিটেনের হস্তক্ষেপের বিপরীতে চীন কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে পারে। GBP/USD পেয়ারটি কিছুটা নিম্নমুখী অবস্থায়, যা 1.2550 এর নিচে অবস্থান করছে।

AUD/USD পেয়ারটি 0.70 এর নিচে অবস্থান করছে যার নেপথ্যে প্রভাব ফেলেছে করোনা সংক্রমণ।

WTI Oil $40 এ স্থিতিশীল অবস্থায় আছে। ক্রিপ্টোকারেন্সির অবস্থাও নিম্নমুখী যেখানে বিটকয়েন $9,200 এর নিচে অবস্থান করছে।

তেলের মূল্যমান হ্রাস; Brent crude (LCOc1) কমেছে 0.6%

leave a reply