ADVERTISING

বিশ্বব্যাংক (WB) থেকে $250 মিলিয়ন ডলার ঋণ গ্রহণ করবে বাংলাদেশ

বিশ্বব্যাংক (WB) থেকে $250 মিলিয়ন ডলার ঋণ গ্রহণ করবে বাংলাদেশ বিশ্বব্যাংক (WB) থেকে $250 মিলিয়ন ডলার ঋণ গ্রহণ করবে বাংলাদেশ

MarketDeal24.Com – বাণিজ্য ও বিনিয়োগের পরিবেশ আধুনিকায়নের মাধ্যমে কর্মসংস্থানের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা, শ্রমিকদের সুরক্ষার ব্যবস্থা জোরদার করা এবং দরিদ্র জনগোষ্ঠীর জন্য কর্মসস্থান বাড়ানোর লক্ষ্যে বাংলাদেশ চলতি অর্থবছরে বিশ্বব্যাংকের কাছ থেকে $250 মিলিয়ন ডলার ঋণ গ্রহণ করবে।

নাম প্রকাশ না করার অনুরোধ জানিয়ে এক কর্মকর্তা বলেন, “অর্থ মন্ত্রনালয় ওয়াশিংটন ভিত্তিক বহুমাত্রিক ঋণদানকারীর সাথে ১৮ই মে চূড়ান্ত আলোচনা শেষ করেছে।”

বিশ্বব্যাংক (WB) থেকে প্রকাশিত এক তথ্য অনুযায়ী, অনুমোদনের জন্য প্রস্তাবটি ১৯ শে জুন ব্যাংকের বোর্ডে রাখা হতে পারে।

এদিকে ওয়াশিংটন ভিত্তিক সেই ঋণদাতা বলছেন যে, “বাংলাদেশের উন্নয়নের উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি থাকা সত্ত্বেও, ভাল কাজের প্রাপ্যতা একটি বড় চ্যালেঞ্জ হিসাবে রয়ে গেছে।”

Forexmart

পারিশ্রমিক না পাওয়া কৃষিশ্রমিক, দিনমজুরী এবং বিদেশী অভিবাসী এর মত উচ্চ স্তরের দুর্বলতার সাথে সাথে কাজের বাজে পরিবেশ এর কারনে বেসরকারী খাতে কর্মরত শ্রমিকরা স্বাস্থ্য, সুরক্ষা এবং পরিবেশগত মান প্রয়োগ না করায় ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে।

দেশটিতে লিঙ্গ বৈষম্য এখনো তীব্র। শ্রমশক্তিতে মাত্র 36% নারী কর্মরত আছে। যেখানে পুরুষের পরিমাণ 80% এরো বেশি। এছাড়াও একজন শ্রমজীবী ​​মহিলা একজন শ্রমজীবী ​​পুরুষের তুলনায় 5% কম বেতনে কাজে নিযুক্ত হচ্ছেন।

GDP এর প্রবৃদ্ধি 7%

গত তিন বছরে দেশটির GDP এর প্রবৃদ্ধি 7% ছাড়িয়ে গেলেও, কর্মসংস্থান সৃষ্টির গতি তীব্রভাবে হ্রাস পেয়েছে। যার কারণে শ্রমবাজারগুলিতে বিশেষত নারী ও যুবকদের চাপ আরো বৃদ্ধি পেয়েছে।

ভালো কর্মসংস্থান সৃষ্টির ক্ষেত্রে বাংলাদেশের কাঠামোগত চ্যালেঞ্জ এখন মহামারীর ক্রমবর্ধমান প্রভাব এর কারণে আরো বৃদ্ধি পেয়েছে।

যার কারণে গ্রাম এবং শহর দুই দিকেরই লক্ষ লক্ষ মানুষের জীবন এবং জীবিকা অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়েছে।

COVID-19 সঙ্কট দেশটির একক খাতের উপর নির্ভর করার ঝুঁকিকে তুলে ধরেছে। পোশাক প্রস্তুতকারীরা প্রথমে চীন থেকে সরবরাহ হ্রাসের ধ্বাক্কা এবং পরে ইউরোপীয়ান এবং আমেরিকান ক্রেতাদের কাছ থেকে চাহিদা হ্রাসের ধাক্কা খেয়েছে। 

এপ্রিলের প্রথমদিকে, $3 বিলিয়ন ডলারেরও বেশি অর্থের অর্ডার বাতিল হয়ে যায়। এবং বিশ্বব্যাপী সকল বড় বড় ক্রেতারা তাদের ভবিষ্যতের অর্ডার ও স্থগিত করে দেয়।

এটি কেবলমাত্র পোশাক খাতেইর 1 মিলিয়ন বা তারো বেশি মানুষের চাকুরিকে ঝুঁকিতে ফেলে দেবে। এবং শত শত কারখানা বন্ধ করতে বাধ্য করে।

এ বিষয়ে বিশ্বব্যাংক (WB) বলে, “বিবিধকরণের জন্য FDI [foreign direct investment] এবং দেশীয় বিনিয়োগ উভয় ক্ষেত্রেই উল্লেখযোগ্য বৃদ্ধি প্রয়োজন।”

এদিকে বিনিয়োগের পথে দাঁড়িয়ে থাকা বাধা নিরসন করে ৫৪ টি বিধি-বিধানের বিষয়ে বাংলাদেশ একটি গেজেট প্রজ্ঞাপন জারি করেছে।

অ-পোশাক কোম্পানীগুলির জন্য বন্ধনযোগ্য গুদাম সুবিধার ব্যাবস্থা করতে সরকার পদক্ষেপ নিয়েছে। এখনো অবধি এই সুবিধাটি শুধুমাত্র পোশাক খাতের কোম্পানীগুলির মধ্যে সীমাবদ্ধ ছিল।

এছাড়াও মন্ত্রিসভা শুল্ক আইন অনুমোদন করেছে। বর্তমানে এটি সংসদে পাস হবার অপেক্ষায় আছে।

পাশাপাশি কর্মজীবী ​​মায়েদের বাচ্চাদের যত্ন নেওয়ার সময় তাদের চাকরি চালিয়ে যেতে সহায়তা করার জন্য ডে-কেয়ার সেন্টারে আইনটি নীতিগতভাবে অনুমোদিত হয়েছে। বিলটি এখন সংসদে পাস হবার অপেক্ষায় রয়েছে।

দুর্বল ডেটা এবং নেতিবাচক সুদের হার নিয়ে আলোচনার মাঝে GBP/USD পেয়ারটির 1.22 এর নীচে যাওয়ার আশঙ্কা

leave a reply