মঙ্গলবারের বাজারে লক্ষ্য রাখার মতো ৫টি বিষয় | ১৩ই অক্টোবর, ২০২০

ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারনা আবারো শুরু হয়েছে ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারনা আবারো শুরু হয়েছে

মঙ্গলবার, ১৩ই অক্টোবরের অর্থনৈতিক বাজারে যে ৫টি বিষয়ের উপর লক্ষ্য রাখতে হবেঃ

১. আমাজন প্রাইম ডে এবং Apple এর iPhone উন্মোচন

আজকে মার্কেটে দুইটি বড় ইভেন্ট হতে যাচ্ছে। Amazon এর বার্ষিক প্রাইম ডে এবং Apple তার নতুন 5G সম্বলিত মোবাইল iPhone ১২ উন্মোচন করবে আজকে।

Apple এর ইভেন্ট নিয়ে কিছু রিপোর্ট পাওয়া গিয়েছে যে নতুন আইফোনে আমেরিকানদের জন্য নেটওয়ার্ক লিমিট করে দেওয়া হয়েছে যার কারণে বেশির ভাগ নতুন মবাইলে গতিশীল ডাউনলোড স্পীড পাওয়া যাবে না। যদিও এটাকে ছোট ত্রুটি হিসেবে ধরা হচ্ছে।

এদিকে আরো একটি গুরুত্বপূর্ন ইভেন্ট হলো Amazon এর প্রাইম ডে। এটা থেকে মার্কিন ভোক্তাদের চাহিদা সম্পর্কে ধারনা পাওয়া যাবে এবং ব্যাপক হারে বেকারত্বের মাঝে অর্থনীতি সম্পর্কে একটু ধারনা পাওয়া যাবে।

Forexmart

২. ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারনা আবারো শুরু হয়েছে

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প আবারো তার নির্বাচনী প্রচারনায় যোগ দিয়েছেন এবং তার সমর্থকদের বলেছেন যে সে আগের থেকে অনেক বেশী শক্তিশালী বোধ করছেন এবং তার শরীর করোনা ভাইরাস থেকে পুরোপুরি নিরাপদ। যদিও চিকিৎসা বিশেষজ্ঞরা ট্রাম্পের এই কথার বিরোধ করেছেন কারণ আমেরিকাতে প্রথম বারের মতো আগে করোনায় আক্রান্ত হওয়া ব্যাক্তি রা আবারো আক্রান্ত হওয়া শুরু করেছে।

ট্রাম্পের ডাক্তার জানিয়েছে যে প্রেসিডেন্ট এই নিয়ে টানা দুইদিন করোনা ভাইরাস পরিক্ষায় নেগেটিভ এসেছেন।

এদিকে করোনার ভ্যাকসিন সম্ভাবনায় কিছুটা ভাটা পড়েছে যেহেতু জনসন এন্ড জনসন তাদের ভ্যাকসিনের তৃতীয় স্তরের ট্রায়াল বন্ধ ঘোষণা করেছে যেহেতু আগের রাতে একজন অংশগ্রহণকারী হঠাত করে অজ্ঞাত কারণে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন।

৩. শেয়ার বাজারে মিশ্র প্রতিক্রিয়া ; ব্যাংক আয়ের প্রতি সবার নজর

মার্কিন শেয়ার বাজার মিশ্র অবস্থায় দিন শুরু করতে যাচ্ছে, যেখানে J&J এর ভ্যাকসিন ট্রায়াল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় ক্লিনিক্যাল স্টক গুলোর মূল্য হ্রাস পেলেও প্রযুক্তি স্টক গুলোর মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে।

পূর্বাঞ্চলীয় সময় ৬টা ১৫ মিনিটে Dow futures ১২১ পয়েন্টস বা ০.৪% হ্রাস পেয়েছে, যেখানে S&P 500 futures ০.১% হ্রাস পেলেও Nasdaq futures ১.০% বৃদ্ধি পেয়েছে।

মার্কেটে সবার নজর থাকবে JPMorgan এবং Citigroup এর তৃতীয় প্রান্তিকের আয়ের রিপোর্টের উপর।

৪. ভাইরাসে আক্রান্ত ইউরোপের অর্থনৈতিক ডাটা

ইউরোপের অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার ধীরে ধীরে মন্থর হয়ে যাচ্ছে, যেহেতু করোনা ভাইরাসের দ্বিতীয় দফায় সংক্রমণ সেন্টিমেন্ট সংকুচিত করে ফেলেছে এবং বেকারত্বের হার বৃদ্ধি পাচ্ছে।

জার্মানির ZEW অর্থনৈতিক সেন্টিমেন্ট সার্ভে মে মাসের পরে সর্বনিম্ন পর্যায়ে চলে গিয়েছে। এছাড়া কোন রকম চুক্তি ছাড়া ব্রেক্সিট আলোচনা শেষ হওয়ার সম্ভাবনা তীব্র হয়ে দাঁড়িয়েছে।

এদিকে, ব্রিটেনে ১১ বছরের মধ্যে সবচেয়ে বেশী চাকরি হ্রাসের রেকর্ড হয়েছে আগস্ট থেকে গত তিন মাসে।

৫. নির্দিষ্ট সময়ের আগে তেলের চাহিদা সর্বোচ্চ পর্যায়ে যাবেঃ IEA

ইন্টারন্যাশনাল এনার্জি এজেন্সি বলেছে তারা আশা করছে যে বিশ্বব্যাপি তেলের চাহিদা ২০৩০ সালের মধ্যে সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছাবে যেহেতু মহামারীর পরে বিশ্ব অর্থনীতির অবস্থা পুরোপুরি পরিবর্তিত হয়ে যাবে। তারা পূর্বে প্রত্যাশা করেছিলো যে পরবর্তী দশকের কোনো এক সময়ে সর্বোচ্চ পর্যায়ে যাবে।

IEA এর নতুন বিশ্ব জ্বালানি আউটলুক মঙ্গলবারে প্রকাশিত হয়। সেখানে বলা হয় মহামারীর কারণে পৃথিবীব্যাপী কয়লার ব্যাবহার ও হ্রাস পেয়েছে , যার ফলে মহামারীর পরে নবায়নযোগ্য প্রযুক্তির উৎপাদন বৃদ্ধি পাবে।

এই রিপোর্টের প্রভাবে পড়বে ওপেকের মাসিক রিপোর্টের উপর, যা কিনা আজকে দুপুরে ভিয়েনাতে প্রকাশ করা হবে।

leave a reply