মার্কিন-চীন দ্বন্দ্বে দুই দেশের শেয়ার বাজার নিম্নমুখী

মার্কিন-চীন দ্বন্দ্বে দুই দেশের শেয়ার বাজার নিম্নমুখী মার্কিন-চীন দ্বন্দ্বে দুই দেশের শেয়ার বাজার নিম্নমুখী

MarketDeal24.Com – Asian shares এবং U.S. stock futures বৃহস্পতিবার নিম্নমুখী অবস্থানে আছে। যার নেপথ্যে মার্কিন-চীন সম্পর্কের দ্বন্দ্ব। এছাড়া নতুন করে করোনা সংক্রমণ অর্থনৈতিক ব্যয় বাড়িয়ে দিয়েছে অনেকখানি। এতে করে সরকার পড়ছে দ্বিধাদ্বন্দ্বে।

দ্বিতীয় প্রান্তিকে চীনের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ছিল প্রত্যাশার চেয়েও বেশি ভালো অবস্থানে। কিন্তু তাও দেশটির ইকুইটি ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থান থেকে বেরিয়ে আসতে পারেনি।

এশিয়ার নিম্নমুখী অবস্থা যেন সংক্রমিত হয়েছে ইউরোপের শেয়ার বাজারেও। Euro Stoxx 50 futures হ্রাস পেয়েছে 0.83%, German DAX futures হ্রাস পেয়েছে 0.73%, এবং FTSE futures হ্রাস পেয়েছে 0.53%।

জাপানের বাইরে এশিয়া প্যাসিফিক শেয়ারসের MSCI সর্ববৃহৎ সূচক হ্রাস পেয়েছে 1.18%, অপরদিকে টোকিওর Nikkei হ্রাস পেয়েছে 0.74%। আমেরিকার S&P 500 e-mini stock futures হ্রাস পেয়েছে 0.43%।

Forexmart

চীনের শেয়ার বাজারে হ্রাসের পরিমাণ 1.59% এবং অস্ট্রেলিয়ার শেয়ার বাজারে হ্রাসের পরিমাণ 0.9%। কোরিয়া এবং হংকং এর শেয়ার বাজারও ছিল নিম্নমুখী।

Oil futures নিম্নমুখী অবস্থায় ছিল OPEC এবং তার মিত্র দেশগুলো উৎপাদন কমিয়ে আনার পর।

নতুন করে আরেক দফা করোনা সংক্রমণ ব্যবসা বাণিজ্যে নতুন করে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করেছে। ফলে অর্থনৈতিক ধকল এখনই কাটিয়ে ওঠা সম্ভব হচ্ছে না।

মার্কিন সেক্রেটারি অভ স্টেট মাইক পম্পিও বুধবার বলেন, আমেরিকা চীনের উপর ভিসার বিধিনিষেধ আরোপ করবে।

এছাড়া ধারণা করা হচ্ছে ট্রাম্প প্রশাসন চীনের দুটো অ্যাপ-উইচ্যাট এবং টিকটকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

ওয়াল স্ট্রিটে বুধবার S&P 500 বৃদ্ধি পেয়েছে 0.91%। করোনা ভ্যাকসিন বিনিয়োগকারীদের মধ্যে আশা জোগালেও এশিয়ার শেয়ার বাজারে তার কোনো প্রভাব পড়েনি।

U.S. crude 0.78% কমে প্রতি ব্যারেলের মূল্য দাঁড়িয়েছে $40.88। Brent crude 0.62% কমে প্রতি ব্যারেলের মূল্য দাঁড়িয়েছে $43.52।

কারেন্সি মার্কেটে অস্ট্রেলিয়ান ডলার, নিউজিল্যান্ড ডলার এবং চাইনিজ ইউয়ানের মূল্যমান মার্কিন ডলারের বিপরীতে কমে গেছে।

XAU/USD (GOLD): টেকনিক্যাল এনালাইসিস | ১৬ই জুলাই, ২০২০

leave a reply