মার্কিন ডলারের বিপরীতে জাপানের ইয়েন গত সাত মাসের তুলনায় মূল্যমানে সর্বোচ্চতায়; আর্জেন্টিনার কারণে ঝুঁকি এড়ানোর প্রবণতা বৃদ্ধি

0
108 views
মার্কিন ডলারের বিপরীতে জাপানের ইয়েন গত সাত মাসের তুলনায় মূল্যমানে সর্বোচ্চতায়; আর্জেন্টিনার কারণে ঝুঁকি এড়ানোর প্রবণতা বৃদ্ধি
মার্কিন ডলারের বিপরীতে জাপানের ইয়েন গত সাত মাসের তুলনায় মূল্যমানে সর্বোচ্চতায়; আর্জেন্টিনার কারণে ঝুঁকি এড়ানোর প্রবণতা বৃদ্ধি

MarketDeal24.Com – আজ মঙ্গলবার, সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবসে, মার্কিন ডলারের বিপরীতে জাপানের ইয়েন গত সাত মাসের তুলনায় তার মূল্যমানের সর্বোচ্চতায়; এনজেন্টিনার কারণে ঝুঁকি এড়ানোর প্রবণতা বৃদ্ধি পেয়েছে, ফলে চাহিদা বৃদ্ধি পাচ্ছে বিনিয়োগের নিরাপদ আশ্রয়স্থল হিসেবে পরিচিত মুদ্রা জাপানের ইয়েন এর।

মার্কিন ডলারের বিপরীতে জাপানের ইয়েন সর্বশেষ ছিলো ¥105.495 প্রতি ডলার, যা চলমান ২০১৯ সালের জানুয়ারী মাসের ৩ তারিখের পরে সবচেয়ে বেশি।

জাপানের মুদ্রা ইয়েন, যা বিশ্ববাজারে অস্থিরতার সময়ে ঝুঁকিমুক্ত সম্পদে বিনিয়োগে ইচ্ছুক বিনিয়োগকারীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে থাকে, তা চলমান মাসে থাকছে একটি শক্ত অবস্থানে। যার প্রতি সমর্থন যোগাচ্ছে মার্কিন-চীন চলমান বাণিজ্য যুদ্ধ, এবং মার্কিন কেন্দ্রীয়ব্যাঙ্ক ফেডারেল রিসার্ভ এর সুদের হারের মধ্যে কমতি আনার সিদ্ধান্ত।

শুধু তাই নয়, চীনের বিশেষ প্রশাসনই অঞ্চল হংকং এ চলমান রাজনৈতিক অস্থিরতা, যেখানে রাতারাতি প্রতিবাদকারীরা অঞ্চলটির একমাত্র বিমানবন্দরের আগমন টার্মিনালটি দখল করে ফেলে, তা বিশেষভাবে সাহায্য করছে জাপানি মুদ্রাকে। অন্যদিকে, আর্জেন্টিনাতে নির্বাচনের অপ্রত্যাশিত ফলাফল, যা দেশটির মুদ্রা পেসো’র মূল্যমানকে রাতারাতি কমিয়ে আনে, তাও বিশ্ব মুদ্রাবাজারে সমর্থন করছে ইয়েন’কে।

পরিস্থিতি সম্পর্কে Daiwa Securities এর একজন উর্ধতন মুদ্রা কৌঁসুলি য়ুকিও ইশিজুকি বলেন, “হংকং এবং আর্জেন্টিনার কারণে ঝুঁকিমুক্ত সম্পদে বিনিয়োগের প্রবণতা বৃদ্ধি পেয়েছে। অনুমানকারীরা, ইয়েন এ ‘লং-পসিশন’ বৃদ্ধি করে চলেছে।”

কৌঁসুলি য়ুকিও ইশিজুকি বলেন

তিনি আরও বলেন, “জাপানের মুদ্রা ইয়েন এর উর্ধমুখীতাকে ঠেকানোর কোনো লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। এখন লক্ষ্য হলো চলমান ২০১৯ সালের জানুয়ারী মাসে ডলারের বিপরীতে জাপানের মুদ্রার যে মূল্যমান ছিলো, তাকেও ছাড়িয়ে যাওয়ার।”

উল্লেখ্য, গত চার ট্রেডিং সেশন ধরে জাপানের মুদ্রা ইয়েন তার মূল্যমানে বৃদ্ধি পেয়েই চলেছে। মার্কিন মুদ্রা ডলারের বিপরীতে ইয়েন এর মূল্যমান যদি ¥104.100 ইয়েন প্রতি ডলারকে ছাড়ায়, তাহলে তা জানুয়ারী মাসের ইয়েন এর সর্বোচ্চতাকেও ছাড়াবে, যা ২০১৬ নভেম্বর মাসের পরে হবে ইয়েন এর সর্বোচ্চ মূল্যমান।

অন্যদিকে, মার্কিন সরকার কর্তৃক জারিকৃত ট্রেজারী বন্ডের উপরে প্রাপ্ত লভ্যাংশের পরিমান প্রতিনিয়ত হ্রাস পেয়েই চলছে। মার্কিন-চীন চলমান বাণিজ্য যুদ্ধ, এবং ফেডারেল রিসার্ভ কর্তৃক আর একদফা সুদের হারের মধ্যে কমতি আনার সম্ভাবনা এর জন্যে দায়ী। শুধু তাই নয়, যুক্তরাষ্ট্র এবং জাপানের ১০-বছর মেয়াদি সরকারি বন্ডের মধ্যেকার পার্থক্য এখন গত ২০১৬ সালের নভেম্বর পর থেকে সবচেয়ে সংকীর্ণ অবস্থায়।

এদিকে, ইউরোজোনের একক মুদ্রা ইউরো মার্কিন ডলারের বিপরীতে তার মূল্যমানে 0.25% হারে হ্রাস পেয়ে হয়েছে $1.1188 ডলার প্রতি ইউরো। অন্যদিকে, অস্ট্রেলিয়ার মুদ্রা অস্ট্রেলিয়ান ডলার মার্কিন ডলারের বিপরীতে তার মূল্যমানে 0.15% হারে বৃদ্ধি পেয়ে হয়েছে $0.6759 প্রতি মার্কিন ডলার।

দিনের সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত মুদ্রা হলো দক্ষিণ আমেরিকার দেশ আর্জেন্টিনার মুদ্রা পেসো, যা মার্কিন ডলারের বিপরীতে তার মূল্যমানে 15% হারে হ্রাস পেয়ে হয়েছে $52.15 প্রতি ডলার।

IC MARKETS ব্রোকার এ একাউন্ট খুলুন – http://bit.ly/2Jd7FsO

Facebook Comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.