২০২৩ এর আগে রেট অপরিবর্তিত: ফেডারেল রিজার্ভ; ডলারের মূল্যবৃদ্ধি

ফেডারেল রিজার্ভ ফেডারেল রিজার্ভ

ফেডারেল রিজার্ভের মনিটরি পলিসি ঘোষণার পরেই মার্কিন ডলারের মূল্য বৃদ্ধি পায়। যদিও ফেডারেল ওপেন মার্কেট কমিটির মিটিং এ সিদ্ধান্ত হয় আগামী তিন বছরে রেট বৃদ্ধি পাচ্ছে না, তবুও মার্কিন ডলারের মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে। যেমনটা হয়েছিলো জ্যাকসন হোক মিটিং এর পরে, কারণ এর কোনোটাই আশ্চর্য হওয়ার মতো সংবাদ ছিলো না।

আশানুরূপ ভাবেই, ফেডারেল রিজার্ভ মনিটোরি পলিসি অপরিবর্তিত রেখেছে এবং সর্বোচ্চ চাকরির সুযোগ তৈরী হওয়া না পর্যন্ত সুদের হার অপরিবর্তিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তবে ভোটের মধ্যে দেখা যায় ৯ জন নীতিনির্ধারকদের মধ্যে ২ জন এতে অমত প্রকাশ করে। ডট প্লট অনুযায়ী ১৭ জন নীতিনির্ধারকদের মধ্যে ১৩ জন মনে করেন ২০২৩ সালের আগ পর্যন্ত সুদের হার অপরিবর্তিত থাকবে, একজন মনে করেন ২০২২ সালের সুদের হার পরিবর্তন করতে হবে আর বাকি তিনজন মনে করেন ২০২৩ সালে সুদের হার শূন্য এর উপরে থাকবে।

মার্কিন কেন্দ্রীয় ব্যাংক আশা করছে যে ২০২৩ এর আগে তাদের মুদ্রাস্ফীতির টার্গেট পূরণ হচ্ছে না। ফেড চেয়ারম্যান জেরোমে পাওয়েলের মতে আজকের আলোচনায় গুরুত্বপূর্ণ কিছু পরিবর্তন এসেছে এবং দীর্ঘ সময়ের জন্য সুদের হার অপরিবর্তিত রাখার ব্যাপারে সবাই একমত প্রকাশ করেছে। তিনি আরো বলেন অর্থনীতিকে পুনরুদ্ধার করতে আর্থিক সাহায্য লাগবে, এটি ছাড়া অর্থনীতি আরো নীচের দিকে চলে যাবে।

ভোক্তা ব্যয় প্রত্যাশার চেয়েও দুর্বল এসেছে, আগস্ট মাসে মাত্র ০.৬% বৃদ্ধি পেয়েছে তবে ডলারের উপর এর প্রভাব তেমন পড়ে নি। অর্থনীতিবিদরা আশা করছিলো যে এটি ১% বৃদ্ধি পাবে। যদিও প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বেকারদেরকে সপ্তাহে $৩০০ ডলারের প্রণোদনা দেওয়ার একটি নির্দেশনা স্বাক্ষর করেছে, তবে কিছু রাজ্য মাত্র তিন সপ্তাহ এই প্রণোদনা দিয়েছে আগস্টে। এই মাসে সেটি ৫ বা ৬ সপ্তাহে পরিনত হতে পারে। তবে একটা সময় অর্থ শেষ হয়ে যাবে এবং যদিও শেয়ার বাজার ঊর্ধ্বমুখী অবস্থায় আছে তবুও সামনের মাস গুলোতে ব্যয় হ্রাস পাবে।

Forexmart

করোনা ভ্যাকসিন

যদিও সময়ের সাথে সাথে বিনিয়োগকারীরা ফেডারেল রিজার্ভের অল্প সুদের হারের ব্যাপারে অটল থাকা নিয়ে তাদের ঐক্যমত প্রকাশ করছে। এছাড়া এই বছরের শেষের দিকে ভ্যাকসিন বাজারে আসার সম্ভাবনা রয়েছে। ভ্যাকসিন আসার ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই গুরুত্বপূর্ণ কর্ম জীবিদের এবং যাদের খুবই দরকার তাদেরকে ভ্যাকসিন সরবরাহ করা হবে। এছাড়া ২০২১ এর দ্বিতীয় বা তৃতীয় প্রান্তিকের মধ্যে সকল আমেরিকানদের জন্য ভ্যাকসিন সহজলভ্য হয়ে যাবে। এই ধরনের ভালো খবর মার্কিন ডলারের মূল্য বৃদ্ধি করতে সাহায্য করছে। আজকের ফিলেডেলফিয়া ফেড সার্ভে এবং হাউজিং মার্কেট ডাটা ভালো হওয়ার প্রত্যাশা করছে সবাই।

এই সপ্তাহে আরো দুইটি মনিটোরি পলিসি ঘোষণা হতে যাচ্ছে। আজকে রাতে ব্যাংক অব জাপান এবং আগামীকালকে ব্যাংক অব ইংল্যান্ড আলোচনায় বসবে। ফেডারেল রিজার্ভের মতো ই এরাও কোনো পরিবর্তন ছাড়াই মিটিং শেষ করার ব্যাপারে আশাবাদী। এই দুইটির মধ্যে ব্যাংক অব জাপানের সংবাদে মার্কেটে তেমন পরিবর্তন আসবে না। কিন্তু যুক্তরাজ্যের পরিস্থিতি গত মাসের মিটিং এর চেয়ে এখন কিছুটা দুর্বল অবস্থানে রয়েছে। খুচরা বিক্রির পরিমাণ হ্রাস পেয়েছে, ভোক্তা প্রাইস ধীরগতিতে বৃদ্ধি পাচ্ছে গত পাঁচ বছরের মধ্যে এবং বেতন হ্রাস পেয়েছে। এছাড়া ব্রেক্সিট নিয়ে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের সাথে চুক্তি বাতিল হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। তাই পাউন্ডের বিপরীতে ডলারের মূল্যবৃদ্ধির সম্ভাবনা রয়েছে।

leave a reply