চীনে বিধিনিষেধ আরোপের শংকায় বিটকয়েনে আবারো ৫০০ ডলার দরপতন

চীনে বিধিনিষেধ আরোপের শংকায় বিটকয়েনে আবারো ৫০০ ডলার দরপতন

চীনে বিধি-নিষেধ  আরোপের প্রতিক্রিয়ায় গত ২ দিনে  এই নিয়ে ২য় বারের  মত ৫০০ইউএস ডলার দর কমেছে বিটকয়েনে।  গত ২৪ ঘন্টায়  ১.৬১% দর কমায় সর্বোচ্চ  দরের ১০টি ক্রিপ্টো-কারেন্সী  ক্ষতির সম্মুখীন ।  কয়েনমার্কেটক্যাপ ডট কমের মতে এই অস্বাভাবিক ঘটনার  জন্য  এর দর ৪০০০ ইউএস ডলার এবং  মোট মূলধন ৬৮ বিলিয়ন ডলারে নেমে এসেছে।  সেপ্টেম্বর  ০৮ তারিখের দর ৪৬৪৯.১৬ ইউএস ডলার  থেকে  ২ দিনে ১২% কমে গিয়ে আজকের  দর ৪১০৮.৬৯% এসেছে,  যেখানে সেপ্টেম্বর  ০১ তারিখেও এই দর তার সর্বোচ্চ  দর $৫০০০ এর কাছাকাছি-ই ছিল।

 

স্থিতিশীলতা পরীক্ষার সম্মুখীন

ওকে কয়েন, হিউওনি, বিটিসিসি-চীনের প্রধান ৩ বিটকয়েন এক্সচেঞ্জ  গত সেপ্টেম্বর ০৯ এ প্রকাশিত রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন  কাইজিন-এর বিটকয়েন  নিষেধাজ্ঞা  এর  অসত্যতা প্রমাণ করে বাজারে স্থিতিশীলতা  ফিরিয়ে আনে,  যা এখন ফের হুমকির মুখে।  ঐ নিষেধাজ্ঞা  এর খবর ছড়িয়ে পড়ার কয়েক ঘন্টায়  এর দর $৪০৭৫ এ নেমে যায়।  পরবর্তীতে, ব্লকস্ট্রীমের প্রধান পরিকল্পনা  কর্মকর্তা  স্যামসন মউ এই প্রতিবেদনে নির্ভরযোগ্য  সূত্রের অভাবে একে নাকচ করে দেন। ফলে বাজারে কিছুটা স্থিতিশীলতা  ফিরে আসে।

 

এই ৩ এক্সচেঞ্জ  জানায় যে নীতি-নির্ধারক পর্যায়ে  তারা নিয়মিত  যোগাযোগ  রেখেছে এবং পিবিওসি তাদের কোনো নির্দেশনা দেয় নি  নিষেধাজ্ঞা  এর ব্যাপারে।

 

ওকে কয়েন তাদের বিনিয়োগকারীদের  মূলধন নিরাপদ  থাকবে বলে আশ্বস্ত  করেছে পরবর্তীতে।

 

চীনের পদক্ষেপে বাজারে প্রভাব

 

চীন সরকার সোমবার ফিনিশিং  কয়েন অফারিং (আইসিও) বাতিলের ঘোষণার  কয়েক ঘন্টায়  বাজারে $৫০০ কমে যায় যা পরবর্তী  ২৪ ঘন্টায়  পুনরায় $৪৫৫০ এ উঠে আসে।

 

যদিও স্যামসন মউ এই স্থিতিশীলতার দিকে ফিরে আসার প্রবণতাকে বিভিন্ন  সরকার দ্বারা গৃহীত  পদক্ষেপের পরেও স্থিতিশীল থাকার সক্ষমতা  হিসেবেই দেখছেন।

বাজার অস্থিতিশীল  হওয়ায় সর্বোচ্চ  দরের ১০০ টির মধ্যে  ৯০ টি-ই তাদে দরের ১০% এর বেশি  হারায়।

 

চীনের আত্মঘাতী  পদক্ষেপ

 

বিনান্স, আইসিও টোকেন  ব্যবহারকারীদের  দ্বারা  তৈরী  হওয়া নতুন এক্সচেঞ্জ আইসিও তে চীনের নিষেধাজ্ঞা  আরোপের  ঘটনায় চীনা আইপি এড্রেস ধারীদের কার্যক্রম কে স্থগিত করেছে যদিও উইথ-ড্রয়াল করা যাবে বলে জানিয়েছে।  এইচসিসি,এলএলটি,ইএলসি,বিটিএম এবং ওয়াইওওয়াইও এর উপর এই স্থগিতাদেশ  দিয়েছে তারা।

তারা এই ঘটনাকে অবশিষ্ট ৮৪.৫% ব্যবহারকারীদের উপরে গুরুত্ব দেয়ার সুযোগ মনে করছে।

 

সর্বোচ্চ  দরের ১০ টি এক্সচেঞ্জ  এর মধ্যে  চতুর্থ অবস্থানে থাকা “রিপল”-ঈ কেবলমাত্র লাভের মুখ দেখেছে।  তাদের দর  ২.৮৪% হারে $০.২১৪৪৩ বাড়ায় তাদের মূলধন $৮ বিলিয়ন বেড়েছে।

One thought on “চীনে বিধিনিষেধ আরোপের শংকায় বিটকয়েনে আবারো ৫০০ ডলার দরপতন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *