Forex এর তিন অধিবেশন পদ্ধতি

0
446 views
Forex এর তিন অধিবেশন পদ্ধতি
Forex এর তিন অধিবেশন পদ্ধতি

বৈদেশিক মুদ্রা বিনিময় (Forex ) বাজারের অন্যতম সেরা বৈশিষ্ট্য হলো এটি দিনরাত ২৪ ঘন্টা খোলা থাকে।এই কারণে বিনিয়োগকারীরা পৃথিবীর যেকোন প্রান্ত থেকে সাধারণ ব্যবসার সময়ে , কাজের পরে কিংবা মধ্যরাতেও লেনদেন করতে পারেন।যদিও সব সময় বাজার পরিস্থিতি এক থাকে না।

এছাড়া বিভিন্ন রকম মুদ্রা যুগলের বিভিন্ন রকম পরিস্থিতি বা মূল্যমান লক্ষ্য করা যায় একদিনের বিভিন্ন সময়ে যা কিনা জনসখ্যা এর উপরে নির্ভর করে , নির্দিষ্ট সময়ে কি পরিমান বিনিয়োগকারী অনলাইনে আছে তার উপর ভিত্তি করে মূল্য পরিবর্তিত হয়।এই অনুচ্ছেদে আমরা কয়েকটি মূল ব্যবসা অধিবেশন সম্পর্কে আলোচনা করবো , বিভিন্ন সময়ে কিভাবে বাজার পরিবর্তন হয় এবং এই জ্ঞান কিভাবে লেনদেনের ক্ষেত্রে ব্যবহার করা যায় তা নিয়ে আলোচনা করবো।

বৈদেশিক মুদ্রা বিনিময় বাজারকে কয়েকটি লেনদেনের অধিবেশনে বিভক্ত করা

যেখানে এই ২৪ ঘন্টাব্যাপী বাজার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ব্যক্তি ও বিনিয়োগকারীদেরকে সুবিধা প্রদান করে, এর কিছু অসুবিধাও আছে কারণ এটি মুদ্রার তারল্যতার নিশ্চয়তা দেয় এবং যেকোনো সময় লেনদেন করার সুযোগ রয়েছে।যদিও একজন লেনদেনকারী দীর্ঘ সময়ব্যাপী এটির অবস্থান পর্যালোচনা করতে পারবে।এর মানে যেকোনো সময় আপনি সুযোগ হারাতে পারেন কিংবা এর চেয়ে খারাপ পরিস্থিতি হতে পারে যখন অনিশ্চয়তা বৃদ্ধি পাওয়ার পরে একটি প্রতিষ্ঠিত অবস্থান থেকে মুদ্রার অবস্থা পরিবর্তিত হতে পারে যখন লেনদেনকারী অনলাইনে থাকেন না। একজন লেনদেনকারীকে সবসময় বাজারের অনিশ্চয়তার সময় সম্পর্কে ধারণা থাকতে হবে ও সচেতন থাকতে হবে এবং সিদ্ধান্ত নিতে হবে সময়ের উপর ভিত্তি করে কখন লেনদেন করলে ঝুঁকি কম থাকবে।

প্রথাগতভাবে, বৈদেশিক মুদ্রার বাজার তিনটি প্রধান কার্যক্রম অধিবেশনে বিভক্ত : এশিয়ান, ইউরোপিয়ান এবং উত্তর আমেরিকান অধিবেশন। এই তিনটি সময়কে আবার টোকিও, লন্ডন এবং নিউইয়র্ক অধিবেশন ও বলা হয়।এই নামগুলো অদলবদল করে ব্যবহৃত হয় যেহেতু তিনটি শহর প্রত্যেকটি অঞ্চলের প্রধান অর্থনৈতিক কেন্দ্র হিসেবে পরিচিত। বাজার সবচেয়ে বেশি সচল থাকে যখন তিনটি পরাশক্তি একসাথে ব্যবসা করে। ওই সময়ে মূলত ওই অঞ্চলের সব ব্যাংকগুলো এবং কর্পোরেশন গুলো তাদের দিনের লেনদেন করে এবং বাজারের প্রত্যক্ষদর্শীরা সবাই অনলাইনে থাকেন।

এখন আমরা প্রত্যেকটি অধিবেশন সম্পর্কে কিছুটা ধারণা নিব।

এশিয়ান Forex অধিবেশন ( টোকিও )

সপ্তাহের শুরুতে ফরেক্স মার্কেটে যখন তরলতা পুনরোধিষ্ঠিত হয় এশিয়ান বাজারে সবচেয়ে প্রথম কার্যক্রম চালু হয়। বেসরকারিভাবে পৃথিবীর এই অংশটির কার্জকলাপ প্রতিনিধিত্ব করে টোকিও ক্যাপিটাল মার্কেট যেটা কিনা মধ্যরাত থেকে সকাল ৬ ( GMT ) টা পর্যন্ত চালু থাকে। যদিও এই সময়ে আরো কয়েকটি দেশ আছে যারা ব্যাপক পরিমানে অংশগ্রহণ করে তা হলো চীন, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড এবং রাশিয়া।এই মার্কেট টি এতটাই বিস্তর পরিমানে ছড়িয়ে আছে যে এশিয়ান সেশন এর শুরু এবং শেষ স্ট্যান্ডার্ড টোকিও ঘন্টার বাহিরে ছড়িয়ে পড়েছে। এশিয়ান মার্কেটের সময় রাত ১১ (GMT) টা থেকে সকাল ৮ (GMT) টা পর্যন্ত বিস্তার পেয়েছে।

ইউরোপিয়ান Forex অধিবেশন ( লন্ডন )

অধিবেশন মুদ্রার বাজারকে নিয়ন্ত্রণ করা শুরু করে এশিয়ান বাজার বন্ধ হওয়ার ঠিক আগমুহূর্ত থেকে।এই বৈদেশিক মুদ্রা বিনিময় এর সময়টা অনেক জটিল এবং কয়েকটি বড় বড় অর্থনৈতিক বাজার নিয়ে গঠিত।

ইউরোপিয়ান অধিবেশন কে ব্যাখ্যা করার জন্য লন্ডন কে বেছে নেওয়া হয়েছে। লন্ডনের বাজারের সময় শুরু হয় সকাল ৭:৩০ (GMT) মিনিট থেকে এবং শেষ হয় বিকাল ৩:৩০ (GMT) মিনিটে। এই লেনদেন সময় কিছুটা বর্ধিত হয় কিছু বড় বাজারের উপস্থিতির কারণে, যেমন জার্মানি ও ফ্রান্সের বাজার। সাধারণত ইউরোপিয়ান বাজার চালু হয় সকাল ৭(GMT) টায় এবং শেষ হয় ৪(GMT) টা তে।

উত্তর আমেরিকান Forex অধিবেশন

এশিয়ান বাজার শেষ হওয়ার অনেক পরে উত্তর আমেরিকান সেশন শুরু হলেও ইউরোপিয়ান লেনদেনকারী জন্য মাত্র দিনের অর্ধেক সময় তখন। পশ্চিমা অধিবেশনটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকান্ডের প্রভাবে নিয়ন্ত্রিত হয় ,এছাড়াও কানাডা ,মেক্সিকো এবং দক্ষিণ আমেরিকার দেশগুলো এতে অংশ নেয়। এটা কোনো আশ্চর্যের বিষয় হবে না, যদি নিউইয়র্ক শহরে কিছু ঘটে তবে বাজার অনিশ্চতার মধ্যে পড়ে যাবে।

অর্থনৈতিক শেয়ারের লেনদেন, প্রয়োজনীয় পণ্যের লেনদেন এবং অর্থনৈতিক তথ্য প্রকাশনার মধ্যে দিয়ে উত্তর আমেরিকান অধিবেশন শুরু হয় দুপুর ১২ টা থেকে । যুক্তরাষ্ট্রের বাজার বন্ধ হওয়া ও এশিয়ান বাজার চালু হওয়ার মাঝে যে সময়ের ব্যবধান এর মধ্যে বাজার আবার কিছুটা স্থির হয়ে যেতে পারে। নিউইয়র্ক বিনিময় বাজার বন্ধ হয় রাত ৮ টা বাজে।

এশিয়ান/ইউরোপিয়ান বাজারটি একসাথে কিছু সময় হওয়ার কারণে বেশি অনিশ্চয়তা দেখা যায়, যেখানে অন্যান্য সময়ে বাজারের অন্যান্য পণ্যের মূল্য প্রায় একই থাকে।

যদি মুদ্রা যুগল টি একত্রিত হয় এবং এশিয়ান এবং ইউরোপীয়ান অধিবেশনে লেনদেন করে (যেমন EUR/JPY এবং GBP/JPY ) তাহলে এশিয়ান/ইউরোপিয়ান অধিবেশনের মিলিত সময়ে অনেক ভালো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায় এবং কোনো নাটকীয় মূল্য বৃদ্ধি পায় না , যদিও প্রত্যেকটি মুদ্রার নিজস্ব লেনদেন এর সময়ে যদি মূল্যে ঝুঁকি থাকে তাহলে মিলিত সময়েও ঝুঁকি থাকতে পারে।

শেষ কথা

মুদ্রার লেনদেনের ক্ষেত্রে , বাজারে অংশগ্রহকারীকে অবশ্যই ঠিক করতে হবে তার লেনদেনের ক্ষেত্রে বেশি অনিশ্চয়তায় না কম অনিশ্চয়তায় কাজ করবে। যদি অনেক বড় ধরণের পরিবর্তন আশা করেন লেনদেনের ক্ষেত্রে তখন দুইটি অধিবেশন এর মিলিত সময়ে বা অর্থনৈতিক উপাত্ত প্রকাশিত হওয়ার সময়টি উত্তম বলে বিবেচনা করা হয়। এর পরের পদক্ষেপ হলো সিদ্ধান্ত নেওয়া, যে কোন সময়টি লেনদেনের ক্ষেত্রে সবচেয়ে উত্তম। একজন লেনদেনকারীকে তখন বিবেচনা করতে হবে তার পছন্দের লেনদেনের পেয়ারটি কোন সময়ের মধ্যে সবচেয়ে বেশি কার্যকর থাকে।

IC MARKETS ব্রোকার এ একাউন্ট খুলুন – http://bit.ly/2Jd7FsO

Facebook Comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.