Guideline for beginners bangla forex | নতুন ট্রেডারদের জন্য কিছু পরার্মশ।

Guideline for beginners bangla forex নতুন ট্রেডারদের জন্য কিছু পরার্মশ। Guideline for beginners bangla forex | নতুন ট্রেডারদের জন্য কিছু পরার্মশ।

Bangla Forex Beginners Guideline:- নতুন ট্রেডারদের জন্য কিছু পরার্মশ, যা আপনাকে ভালো সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য করবে। এই পোস্টটি তাদের জন্য যারা ফরেক্স কি তা জানেন এবং ভাবছেন কিভাবে শুরু করা যায়।

Bangla Forex Beginners Guideline

এই পোস্টটি তাদের জন্য যারা ফরেক্স কি তা জানেন এবং ভাবছেন কি ভাবে শুরু করা যায় অথবা তাদের জন্য যারা নিজেদের একাউন্ট ব্যালেন্স হারিয়ে ফেলেছেন অথবা হতাশায় ভুগছেন।

আমরা যারা প্রথম প্রথম এই মার্কেটে আসি তারা মনে করে থাকি এই মার্কেটে মনে হয় খুব সহজে টাকা ইনকাম করা যায়। বিশেষ করে যারা $২০০০ – $৫০০০ এর ডেমো একাউন্ট এ ১ মাসেই ডাবল করে ফেলেন। তারা তো স্বপ্ন দেখতে শুরু করেন। তারপর খুব তারাতারি রিয়েল একাউন্ট এ ডিপোজিট করে ফেলেন এবং নিজের ব্যালেন্স জিরো করে ফেলেন। এই রকম ঘটনা খুব বেশি ঘটছে। এর প্রধান কারণ সঠিক গাইডলাইন না পাওয়া।

আপনিও একদিন পারবেন আপনার ব্যালেন্স কে কাজে লাগিয়ে প্রতি মাসে একটা ভালো ফিডব্যাক নিয়ে আসতে এবং হয়তো একটা সময় আসবে আপনিও অনেক ভালো ইনকাম করবেন ঠিক যেমন টা আপনি শুরুর দিকে ভাবতেন। কিন্তু এর জন্য প্রয়োজন ধর্য্য যা আপনাকে অর্জন করতে হবে। এই মার্কেটে টিকে থাকায় সর্ব প্রথম ধাপ। তাই আপনার প্রথম লক্ষ হতে হবে নিজের ব্যালেন্স যেন না হারায়। ভুলে গেলে চলবেনা “slow and steady wins the race“. নিজের মন কে স্থির করতে শিখুন। মনে মনে কোনো টার্গেট প্ল্যান করবেন না যে আজ কে এত $ ইনকাম করায় লাগবে।

Forexmart

যে বিষয় গুলো মেনে চলা অত্যান্ত জরুরি

১। ট্রেডিং প্লাটফর্ম ওপেন করলাম তার মানে এই না আমাকে এন্ট্রি বা ট্রেড নিতেই হবে।
২। H4 D1 W1 টাইম ফ্রেম দেখে এনালাইসিস করবেন।
৩। হুটহাট করে টাইম ফ্রেম না দেখেই কোনো এন্ট্রি নেবেন না।
৪। স্রোতের বিপরীতে এন্ট্রি নেবোনা অর্থাৎ ট্রেন্ড লাইন এর বিপরীতে যাবো না।
৫। কোনো প্রকার সিগন্যাল বা ইনডিকেটর এর ওপর নির্ভর হবেন না।
৬। নিজে চার্ট এনালাইসিস করবেন এবং নিউজ দেখবেন।
৭। ইকোনমিক ক্যালেন্ডার এর দিকে নজর রাখবেন।
৮। এসএল – টিপি বসিয়ে মানি ম্যানেজমেন্ট মেনে চলবেন।
৯। এনালাইসিস করে নিউজ দেখে এসএল – টিপি বসিয়ে এন্ট্রি নিয়ে ঘন ঘন প্লাটফর্ম না চেক করায় উত্তম।
১০। ছোট ছোট লস মেনে নিতে শিখুন বড়ো লস থেকে বেঁচে যাবেন। ছোট ছোট ইনকাম মেনে নিন বড়ো ইনকাম করতে শিখে যাবেন।

মানি ম্যানেজমেন্ট মেনে নতুন এবং পুরাতন ট্রেডাররা যেভাবে শুরু করবেন

প্রথমেই বলবো আপনি আপনার মূল ব্যালেন্স কে তিন ভাগে ভাগ করুন। এক্ষেত্রে আপনার ১টি অংশের পরিমান যদি ১০-১৫০ ডলার এর মধ্যে হয় তাহলে স্ট্যান্ডার্ড একাউন্ট থেকে দূরে থাকেন। আপনি মাইক্রো/সেন্ট একাউন্ট খুলুন আর যদি বেশি ব্যালেন্স হয় তাহলে স্ট্যান্ডার্ড একাউন্ট খুলুন এবং ০.০১ লট সাইজে এ ট্রেড করুন এবং মাইক্রো/সেন্ট একাউন্ট এ ছোট লট সাইজে ট্রেড করুন। এসএল – টিপি দিয়ে ট্রেড করুন, অল্প প্রফিট করুন কিন্তু বেশি পিপ্স টার্গেট করুন। তার মানে কম লট সাইজে এ বেশি পিপ্স লাভ করার চেষ্টা করুন। তাহলে প্রফিট ও কম হবে লস ও কম হবে। যদি আপনি বার বার লস করেন তাতেও কোনো সমস্যা নেই কারণ আপনার ব্যালেন্স ০০ হয়ে গেলেও আপনার আরো ২টি অংশ আলাদা করে রাখা আছে। শুধু এই বিষয় টা খেয়াল রাখবেন যে খুব ধীরে ধীরে আগাবেন। আপনার প্রথম অংশ শুন্য হতেও যেন এক মাস সময় লাগে।

তাহলে দেখবেন আপনি যত লস করবেন ত তো শিখবেন আবার যত প্রফিট করবেন ত তো শিখবেন। তার মানে যত দিন এইখানে আপনি বেশি স্টে করতে পারবেন ত তো বেশি শিখতে পারবেন। মনে রাখবেন যেকোনো ব্যবসা শুরু করলে আমরা তিন থেকে ছয় মাস কোনো প্রফিট চিন্তা করিনা শুধু পরিশ্রম করি। ঠিক তেমনি ভাবে এইখানেও আপনি সেই চিন্তা করবেন এবং মার্কেটের সাথে টিকে থাকবেন। এবং আপনারা ডেমো একাউন্ট এর পরিবর্তে সরাসরি মাইক্রো/সেন্ট একাউন্ট এ ০.১০ বা তার চেয়ে কম সাইজে ট্রেড করতে পারেন কারণ ডেমো একাউন্ট অনেক সময় খুব বোরিং লাগে এবং মনোযগ বসে না।

আমি ব্যাক্তিগত ভাবে যে ব্রোকার পছন্দ করি তার লিংক নিচে দিয়ে রাখলাম আপনারা চাইলে এই খানে আপনাদের একাউন্ট খুলতে পারেন। এখানে আপনি মাইক্রো/সেন্ট, স্ট্যান্ডার্ড একাউন্ট খুলতে পারবেন এবং খুব সহজেই ভেরিফিকেশন ও লেনদেন করতে পারবেন। যে কোনো ধরণের প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট এ জানাতে পারেন। পোস্ট টি ভালো লাগলে অবশ্যই শেয়ার করবেন এবং কমেন্ট করে জানাবেন।

আমার পছন্দের ব্রোকার সাইটটি ভিসিট করতে ক্লিক করুন

ধন্যবাদ-
মো: নীরব হাসান

২ Comments

leave a reply