Moving average ব্যবহার করে ট্রেন্ড চিহ্নিত করার পদ্ধতি

Moving average ব্যবহার করে ট্রেন্ড চিহ্নিত করার পদ্ধতি Moving average ব্যবহার করে ট্রেন্ড চিহ্নিত করার পদ্ধতি

Moving average পদ্ধতি ব্যবহার করে আপনি খুব সহজেই ফরেক্স বাজারের গতিপ্রকৃতি বা ট্রেন্ড চিহ্নিত করতে পারেন । এটি হলো moving average টুল এর সবচেয়ে বড় সুবিধা । প্রথমে আপনাকে moving average অপশনে ক্লিক করে দেখতে হবে । আপনি যদি দেখেন যে মূল্যগুলোর গতি এই রেখার উপরে তাহলে বুঝতে হবে যে এখন Uptrend চলছে আর অন্যদিকে মূল্যগুলো যদি রেখার নিচের দিকে থাকে তাহলে dwntrend ।

Trade এ enter করা বা ঢুকার জন্যে moving average crossover ব্যবহারের পদ্ধতি

যখন কোনো ট্রেন্ড তার নিজস্ব গতি থেকে দিক পাল্টে নিয়ে বিপরীত দিকে ধাবিত হয় তখন ঘটে reversal এর । আর এই অবস্থাকে বলা হয় crossover । এটির জন্যে আপনাকে মুভিং অ্যাভারেজ এর রেখা প্রস্তুত করতে হবে এবং অপেক্ষা করতে হবে crossover এর । যদি মুভিং অ্যাভারেজ এর রেখাগুলো একটি অপরকে ছিন্ন করে তাহলে বুঝতে হবে যে একটি crossover হচ্ছে যা আপনাকে বাজারে ঢুকার সঠিক সময় সম্পর্কে ধারণা দিবে ।

Bollinger Bands

আলোচনার এই পর্বে আমরা শিখবো indicator বা নির্দেশকের ব্যবহারের মাধ্যমে বাজারের স্তিথিশীলতা কিভাবে চিহ্নিত করতে হবে । যুক্তরাষ্ট্রের একজন বিখ্যাত গণিতবিশারদ John Bollinger কর্তৃক আবিষ্কৃত এই indicator বা নির্দেশক দ্বারা খুব সহজেই বাজারের স্থিরতা বা অস্থিরতার অবস্থা জানা যাবে ।

এই indicator বা নিদেশকের ব্যবহারের বুঝার খুব সহজ উপায় হলো বাজার যখন স্থির বা শান্ত থাকে তখন Bollinger Band ব্যবহারের মাধ্যমে আপনার স্ক্রিন এ আসা দুইটি রেখা অনেকটা কাছাকাছি অবস্থান করে । আবার অন্যদিকে, বাজার যখন অস্থির বা অশান্ত থাকে তখন তখন ঐ দুইটি রেখাকে একটি থেকে উন্নতিকে একটু দূরে অবস্থান করতে দেখা যায় । অর্থাৎ, রেখা দুইটা সম্প্রসারিত হয় ।

Forexmart

উপরে দেয়া এই চার্টে আপনি নিশ্চই দেখতে পাচ্ছেন যে, মূল্য যখন শান্ত, অর্থাৎ, মূল্য যখন খুব একটা উঠানামা করছে না তখন রেখা দুইটা অনেকটা কাছাকাছি আবার চার্টের ডানদিকে মূল্য যখন বেশি উঠানামা করছে তখন রেখা দুইটা অনেকটা সম্প্রসারিত হচ্ছে ।

Bollinger Bands এর আবার দুইটা প্রয়োগ আছে । একটি হলো Bollinger Bounce আর অন্যটি Bollinger Squeeze ।

Bollinger Bounce

কারেন্সী পেয়ারের মূল্যের একটি প্রবণতা আছে এবং তা হলো, Bollinger Bands এর মাধ্যমে লক্ষ্য করলে আপনি বুঝতে পারবেন, এই মূল্য প্রায়ই Band এর মাঝামাঝি আসে । মূল্যের এই মাঝামাঝি আসাকেই বলে Bollinger Bounce.

উপরে প্রদর্শিত এই দুইটি চার্টের বিশ্লেষণে আপনি লক্ষ্য করবেন যে বামদিকের চার্টের শেষে মূল্য Band ভেদকরে উপরেরদিকে উঠতে চাচ্ছে । কিন্তু পরে তা না হয়ে তা এসেছে ব্যান্ড এর মাঝামাঝি, যা ডানদিকের চার্টে দৃশ্যমান ।

Bollinger Squeeze

Squeeze অবশ্যই একটি ইংরেজি শব্দ যার অর্থ হলো চিপড়ানো । ফরেক্সে মূল্য কিছুক্ষন স্থির থাকার পর যখন খুব বেশি উঠানামা করে তখন তখন মূল্যকে দেখা যায় Band কে ভাঙ্গতে । যেহেতু পূর্বে মূল্য স্থির ছিলো তাই Bollinger Bands এর রেখাগুলো ছিলো খুব কাছাকাছি । রেখাগুলোর এই কাছাকাছি থাকা অবস্থায় যখন বাজারে অস্থিতিশীলতা শুরু হয় তখন চার্টের দিকে তাকালে মনে হবে যে সংকীর্ণ রেখাদ্বয় ক্যান্ডেলস্টিকগুলোকে চিপড়াচ্ছে । Bollinger Bands নির্দেশকের এই দৃশ্যমান অবস্থাকেই বলে Bollinger Squeeze । যদি এই অবস্থায় বুঝা যায় যে ক্যান্ডেলস্টিকগুলো Bands ভেঙ্গে উপরেরদিকে ধাবমান তাহলে এটি একটি Uptrend শুরু হবার দিকে ইঙ্গিত করে । আবার অন্যদিকে, যদি মনেহয় যে ক্যান্ডেলস্টিকগুলো Bands এর রেখাগুলোকে ভেঙ্গে নিচেরদিকে যাচ্ছে তাহলে একটি downtrend আসন্ন ।

leave a reply