WALL STREET এর আদ্যপান্ত এবং আমেরিকার শেয়ার বাজার

WALL STREET মূলত অর্থায়ন এবং বিনিয়োগের বিশাল এক দুনিয়া। যার অন্তর্ভুক্ত নিউ ইয়র্ক স্টক এক্সচেঞ্জ, আমেরিকান স্টক এক্সচেঞ্জ এবং কিছু বিশেষ অঞ্চলের স্টক এক্সচেঞ্জ যা তত্ত্বাবধান করে সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন। এছাড়া WALL STREET বলতে বিশ্লেষকরা তাদের বোঝান যারা ওভার দ্য কাউন্টার মার্কেটে ট্রেড করে।

সতেরো শতকের দিকে রাস্তাটির নামকরণ করা হয়। যেখানকার ওয়ালটি ডাচ সেটেলমেন্ট বসতি নিউ অ্যামস্টারডামকে ন্যাটিভ আমেরিকানদের থেকে আলাদা করে। ১৬৯৯ সালের শেষে ওয়ালটি ধ্বংস হয়ে যায় কিন্তু রয়ে যায় নামটি।

১৭৮৯ সালের যুদ্ধের পর আমেরিকা স্বাধীনতা লাভ করে এবং একটি সার্বভৌম রাষ্ট্র হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়। একই বছর আমেরিকার প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন জর্জ ওয়াশিংটন। অনুষ্ঠিত হয় কংগ্রেসের প্রথম অধিবেশন।

সেখানে প্রথম পাবলিক বন্ড ইস্যু করার কথা বলা হয় যা মূলত সামরিক খরচ বহনের জন্য। পরবর্তীতে কেন্দ্রীয় ব্যাংক “ব্যাংক অভ ইউনাইটেড স্টেটস” কংগ্রেস অনুসরণ করে শেয়ার ইস্যু করে।

Forexmart

তবে স্টক থাকলেও তা লেনদেনের জায়গা ছিল না। ক্রেতা বিক্রেতা একে অপরকে খুঁজে বেড়াত পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দেয়ার মাধ্যমে। পরবর্তীতে স্টক অন্যান্য পণ্যের মতই লেনদেন হওয়া শুরু করল। সেখান থেকেই পরবর্তীতে ওভার দ্য কাউন্টার নামটি আসে।

শেয়ার ক্রেতাদের পরিমাণ দিন দিন বাড়তেই থাকল। তখন WALL STREET এর এন্টারপ্রাইজ ট্রেডারগণ সিকিউরিটি ট্রেডিংয়ের জন্য সেন্ট্রাল অকশন সিস্টেম চালু করে। অনেক ব্রোকার অকশনে আসত শুধু দাম জানা এবং শেয়ার বিক্রয় করার জন্য।

পরবর্তীতে নতুন নিয়ম জারি করা হয় অসৎ ব্রোকারদের নিয়ন্ত্রণের উদ্দেশে। ১৭৯২ সালের ২৪শে মে জনগণ বাটনউড চুক্তিতে স্বাক্ষর করে। পরবর্তীতে সেখান থেকেই নিউ ইয়র্ক স্টক এক্সচেঞ্জের অনেক অংশ উঠে আসে।

নিউ ইয়র্ক স্টক এক্সচেঞ্জ

পরবর্তীতে ১৯০৩ সালে ইলেভেন WALL STREET এ আলাদা ভবন নির্মিত হয় যেখানে বর্তমানে অবস্থিত আজকের নিউ ইয়র্ক স্টক এক্সচেঞ্জ।

১৯৯০ সালের শুরুতে ইমানুয়েল এস মেনডেলস কার্ব মার্কেট এজেন্সি নির্মাণ করেন। তিনি সেখানকার ব্রোকারদের জন্য আলাদা নিয়ম প্রণয়ন করেন। পরবর্তীতে যা WALL STREET-কে একটি সংস্থা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করে। পরবর্তীতে নিউ ইয়র্ক এক্সচেঞ্জ আলাদা ট্রেডিং ফ্লোর গঠন করে। ১৯৫৩ সালে যার নাম পরিবর্তিত হয়ে আমেরিকান স্টক এক্সচেঞ্জ হয়।

২০১২ সালে আমেরিকান স্টক এক্সচেঞ্জের নাম পরিবর্তিত করে রাখা হয় NYSE MKT LLC। NASDAQ এর পূর্ণ রূপ National Association of Securities Dealers Automated Quotations।

WALL STREET এর সূচক সমূহ

Dow Jones index মার্কিন শেয়ার বাজারের সূচকের মধ্যে সবচেয়ে পুরানো। এর দ্বারা আমেরিকান স্টক মার্কেটের শিল্প খাতের যাবতীয় হিসাব রাখা হয়। এটি মূলত আমেরিকার ৩০টি বড় বড় কোম্পানির দ্বারা গঠিত।

S&P 500 দ্বারা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ব্যবসায়িক কর্মকাণ্ড অনুসরণ করা হয়। এই সূচকের অধীনে রয়েছে ৫০০টি কোম্পানি। এই সূচকের সকল কোম্পানির শেয়ার NYSE এবং NASDAQ এর অন্তর্ভুক্ত।

NASDAQ মূলত আমেরিকার শেয়ার বাজারের হাই টেকনোলজি কোম্পানির যোগান এবং চাহিদার নির্দেশক হিসেবে কাজ করে। এই সূচকের সাথে সম্পর্কযুক্ত ব্যাংক এবং ব্রোকারেজ ফার্ম। যারা মূলত ওভার দ্য কাউন্টার সিকিউরিটি ট্রেডিংয়ের ক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞ। এই সূচকটি হাই টেকনোলজি কোম্পানির মার্কেট ভ্যালুর উপর প্রতিষ্ঠিত।

PrimeXBT – ক্রিপ্টো ট্রেডিংয়ের জগতে এক অনন্য ব্রোকার

  • 5G নেটওয়ার্কে হুয়াওয়ের বিকল্পের জন্য জাপানকে আহ্বান জানালো যুক্তরাজ্য - Nikki
    আগ ২৪, ২০২০

leave a reply